লাঙ্গলজোড়ায় শিশু নাট্যশিল্পী সাজ্জাদকে হত্যার চেষ্টা, হাসপাতালে ভর্তি

জামালপুরে নির্মম নির্যাতনের শিকার চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ও শিশু নাট্যশিল্পী সাজ্জাদ হোসেন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

গাছ থেকে সুপারি চুরির মিথ্যা অভিযোগে খেলার মাঠ থেকে ধরে নিয়ে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ও শিশু নাট্যশিল্পী সাজ্জাদ হোসেনকে (১১) নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গুরুতর আহত ও অসুস্থ অবস্থায় শিশুটিকে জামালপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ৫ অক্টোবর দুপুরে জামালপুর পৌরসভার লাঙ্গলজোড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযোগে জানা গেছে, ৫ অক্টোবর সকালের দিকে জামালপুর পৌরসভার লাঙ্গলজোড়া পূর্বপাড়া এলাকার শাহজাহান খানের ছেলে সোহাগ খানের বাড়ির সুপারি গাছ থেকে কিছু সুপারি চুরি হয়। সোহাগ খানের সন্দেহের দৃষ্টি পড়ে প্রতিবেশী দরিদ্র কাঠমিস্ত্রি আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র সাজ্জাদ হোসেনের প্রতি। শিশু নাট্যশিল্পী হিসেবেও এলাকায় এবং জেলার বিভিন্ন মহলে বেশ পরিচিতি রয়েছে সাজ্জাদের। দুপুর দেড়টার দিকে সহপাঠীদের সাথে স্থানীয় লাঙ্গলজোড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে খেলাধুলা করছিল সাজ্জাদ। এ সময় সোহাগ খান তার ছেলে নিহাল খানকে দিয়ে ওই মাঠ থেকে সাজ্জাদকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে নির্মম নির্যাতন করেন।

সুপারি চুরির অভিযোগ তুলে শিশু সাজ্জাদের দুই হাত বেঁধে ফেলে মারধর করেন সোহাগ খান। একপর্যায়ে সাজ্জাদের গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা চালায়। এতে তার গলায় ও ঘাড়ের দুই পাশে জখম হয়ে গেছে। ধারালো ছুরি দিয়েও সাজ্জাদের ঘাড়ের দুই পাশে আঘাত করে। কিলঘুঁষির আঘাতে সাজ্জাদের মাথার কিছু অংশ ফুলে গেছে। নির্যাতন সইতে না পেরে সাজ্জাদ অজ্ঞান হয়ে মাটিতে পড়ে যায়। খবর পেয়ে সেখান থেকে সাজ্জাদকে উদ্ধার করে জামালপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে স্বজনরা। এ ঘটনার পর থেকে নির্যাতনকারী সোহাগ খান গা ঢাকা দিয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

নির্যাতনের শিকার শিশু সাজ্জাদের বাবা আব্দুল কুদ্দুছ অভিযোগ করে এ প্রতিবেদক বলেন, এলাকার যেসব ছেলেরা সোহাগ খানদের বাড়ি থেকে সুপারি চুরি করেছে তাদের একজন আমাকে বলেছে তাদের সাথে সাজ্জাদ ছিল না। অথচ সুপারি চুরির অপবাদ দিয়ে বিনা অপরাধী আমার ছেলে সাজ্জাদের ওপর নির্মম নির্যাতন চালিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করেছে সোহাগ খান। আমার ছেলেটাকে গুরুতর আহত ও অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করেছি। বিনা অপরাধে আমার ছেলেকে নির্যাতন করে হত্যার চেষ্টাকারী সোহাগ খানকে গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। আমি সোহাগ খানকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করবো।

এ প্রসঙ্গে জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সালেমুজ্জামান এ প্রতিবেদককে বলেন, সুপারি চুরির অভিযোগে সাজ্জাদ নামের এক শিশু নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে শুনেছি। থানায় অভিযোগ দিতে বলেছি শিশুর বাবাকে। অভিযোগ পেলে মামলা দায়ের করে আসামিকে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা হবে।

বাংলারচিঠিডটকমে আরও পড়ুন :

Views 74 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad