রশিদুজ্জামান মিল্লাতের প্রার্থিতার বৈধতা স্থগিত

এম রশিদুজ্জামান মিল্লাত

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠি ডটকম

হাইকোর্টের এক আদেশে জামালপুর-১ (দেওয়ানগঞ্জ-বকশীগঞ্জ) আসনের বিএনপি দলীয় ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাতের মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশনের দেওয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত করা হয়েছে। একই আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য মো. আবুল কালাম আজাদের করা রিট আবেদনের প্রেক্ষিতে ১৩ ডিসেম্বর হাইকোর্ট এ আদেশ দিয়ে রুল জারি করেছেন।

বিএনপি দলীয় প্রার্থী এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাতের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও সম্পদের তথ্য গোপনের অভিযোগে ২০০৭ সালে দুদকের দায়ের করা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হওয়ার কারণে হাইকোর্টের নির্দেশনা মোতাবেক জামালপুরের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর তার মনোনয়নপত্র বাতিল করেছিলেন। পরে তিনি নির্বাচন কমিশনে আপিল করে তার প্রার্থিতার বৈধতা ফিরে পান এবং ধানের শীষ প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে এ আসনের দুটি উপজেলায় আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিয়ে জনসংযোগ ও ভোট প্রার্থনা করেন। দুই উপজেলাতেই তার নির্বাচনী পোস্টার লাগানো হয়েছে এবং মাইকে নির্বাচনী প্রচারণা অব্যাহত রয়েছে। টানা তিনদিন প্রচারণা চালিয়ে তিনি ১২ ডিসেম্বর ঢাকায় ফিরে যান।

তবে হাইকোর্টের আদেশে এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাতের প্রার্থিতা আটকে যাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে তার নির্বাচনী এলাকার দেওয়ানগঞ্জ ও বকশীগঞ্জ উপজেলায় বিএনপি ও এর অঙ্গদলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও হতাশার সৃষ্টি হয়েছে। থমকে গেছে পুরো উদ্যমে শুরু হওয়া নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা। দলের দায়িত্বশীল নেতারা জানিয়েছেন হাইকোর্টের এই আদেশের বিরুদ্ধে এম. রশিদুজ্জামান আপিল করবেন। আপিলে তার প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ার আশার কথাও জানিয়েছেন দুই উপজেলার নেতারা।

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ বাংলারচিঠি ডটকমকে বলেন, ‘আমাদের প্রার্থী এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাত তো আমাদেরকে নিশ্চিত করেছিলেন মামলাজনিত তার আর কোনো সমস্যা হবে না। তাকে নিয়ে আমরা গত তিনদিন দুই উপজেলায় নির্বাচনী প্রচারণায় নেমে পথসভা ও জনসংযোগ করেছি। দলীয় নেতাকর্মী ছাড়াও সাধারণ ভোটারদের মধ্যেও তাকে নিয়ে বেশ সাড়া পেয়েছি। সরকার নির্বাচন নিয়ে যে খেলা শুরু করেছে। সেই প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবেই আমাদের প্রার্থীকে নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেওয়ার অপচেষ্টা চলছে। আমাদের প্রার্থী ফের আপিল করবেন। আশা করি ওনি ভোটের মাঠে ফিরে আসবেন।’

অপরদিকে এ আসনের বকশীগঞ্জ উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. ফখরুজ্জামান মতিন বাংলারচিঠি ডটকমকে বলেন, ‘আমাদের প্রার্থী এম. রশিদুজ্জামান মিল্লাতের প্রার্থিতা স্থগিত হওয়ায় নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। তবে আমরা আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। এ নিয়ে আমরা কোনো প্রতিবাদ কর্মসূচি দিচ্ছি না। আমরা আশা করি আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমেই আমাদের প্রার্থী তার প্রার্থিতা ফিরে পাবেন।’

  ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad