ইসলামপুরে রাস্তায় ঘর নির্মাণের উদ্যোগে ৪০০ পরিবার অবরুদ্ধ

রাস্তার মাথায় নিজের জমি দাবি করে সেখানে ঘর নির্মাণের জন্য মাটি ভরাট করেছেন হেলাল উদ্দিন। ছবি : বাংলার চিঠি ডটকম

সাহিদুর রহমান, ইসলামপুর ॥
জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার পলবান্ধা ইউনিয়নের সিরাজাবাদ গ্রামের ফারাজীপাড়ায় দীর্ঘদিনের পুরনো একটি রাস্তার মাথায় বাড়ি নির্মাণ কাজ শুরু করায় ওই এলাকার ৪০০ পরিবার অবরুদ্ধ হয়ে পড়েছে। ফলে যাতায়াতের দুর্ভোগের শিকার স্থানীয় গ্রামবাসীরা ওই রাস্তাটি চালু রাখার জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি জানিয়েছেন।

জানা গেছে, উপজেলার পলবান্ধা ইউনিয়নের সিরাজাবাদ গ্রামের ফারাজীপাড়ার মাটির রাস্তাটি স্থানীয় কুদ্দুস বেপারীর বাড়ির পাশ দিয়ে গেছে। প্রায় শত বছরের পুরনো ওই রাস্তাটি ছাড়া যাতায়াতের বিকল্প কোনো রাস্তাও নেই সেখানে। ৮ সেপ্টেম্বর থেকে কুদ্দুস বেপারীর ছেলে হেলাল উদ্দিন রাস্তার মাথায় তার নিজের জমি দাবি করে সেখানে ঘর নির্মাণের জন্য মাটি ভরাট করছেন। মাটি ভরাটের কারণে ওই রাস্তায় সাধারণ পথচারীসহ ইজিবাইক, মোটরসাইকেল এমনকি বাইসাইকেল চলাচলও বন্ধ হয়ে গেছে। এতে করে স্থানীয় ৪০০ পরিবারের অন্তত ২ হাজার মানুষেরা চরম বিপাকে পড়েছেন।

ওই এলাকার ইজিবাইকচালক গোলাপ হোসেন জানান, ৮ সেপ্টেম্বর সকালে তার গাড়ি নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। রাতে বাড়ি ফেরার সময় দেখি রাস্তার মাথায় মাটি ফেলে উচু করা হচ্ছে। গাড়ি নিয়ে বাড়িতে আর যেতে পারেননি তিনি। ওই গ্রামের ইজিবাইক চালক আলামিন, আকরাম, ইজেল, নবা মিয়াসহ আরো কয়েকজন ইজিবাইক চালক একই অভিযোগ করেন।

সিরাজাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছালমা আক্তার বলেছে, আমাদের স্কুলে যাওয়ার একমাত্র রাস্তা ছিল এটি। এই রাস্তার মাথায় বাড়ি নির্মাণ করলে আমরা কোন রাস্তা দিয়ে স্কুলে যাব।

স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা হাসমত মিয়া বাংলার চিঠি ডটকমকে বলেন, আমি জন্ম থেকেই এ রাস্তা দিয়ে হাট বাজারে চলাচল করতাম। হঠাৎ হেলাল উদ্দিন রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় অবাক হয়েছি। এটা সম্পূর্ণ অমানবিক। এই রাস্তা চালু না থাকলে এই এলাকার মানুষের অনেক ক্ষতি হবে। স্থানীয় প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

অভিযোগ প্রসঙ্গে হেলাল উদ্দিন বাংলার চিঠি ডটকমকে বলেন, আমার জমিতে আমি ঘর নির্মাণ করছি। আমার বাড়ি নির্মাণ করতে হবে সেজন্যই রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছি। তারা বিকল্প কোনো রাস্তা বের করে নিতে পারে।

স্থানীয় পলবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহাদত হোসেন স্বাধীন বাংলার চিঠি ডটকমকে বলেন, ফারাজীপাড়ার রাস্তার মাটি ফেলে রাস্তা বন্ধ করার কথা শুনেছি। ওই গ্রামের সবাই মিলে বসলে রাস্তার বিষয়টি ফয়সালা করে দিব।

ইসলামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান এ প্রসঙ্গে বাংলার চিঠি ডটকমকে বলেন, সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যানের সাথে আলোচনা করে ঘটনারস্থল পরিদর্শন করে রাস্তার বিষয়ে ব্যবস্থা নিব।

Views 35   ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad