সরিষাবাড়ীতে নৌকা পেতে এক জোট হতে হবে : প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম

ভাটারায় জনসভা মঞ্চে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম ও অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

মমিনুল ইসলাম কিসমত, সরিষাবাড়ী ॥
বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম সরিষাবাড়ী আসনের সংসদ সদস্যের প্রার্থিতা মনোনয়ন নিয়ে চলমান পরিস্থিতি প্রসঙ্গে বলেছেন, সরিষাবাড়ীতে নৌকা মার্কা পাইতে হলে, রশিদ ভাই, ডা. মুরাদ ভাই, হেলাল ভাইদের ঐক্য হলেই নৌকা সরিষাবাড়ীতে আসবে না। সমস্ত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের আওয়ামী লীগের পক্ষে, শেখ হাসিনার পক্ষে, বঙ্গবন্ধুর পক্ষে এক জোট হতে হবে। এই খবর যদি আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পান তাহলেই কেবল সরিষাবাড়ীতে কাউকে নৌকা মার্কা দিতে পারেন। আর তা নাহলে ওই যে বাদের খাতায় ফেলে রাখছে, তার মানে আবার হয়তো এ আসন জাতীয় পার্টিকে দিয়ে দিবেন।

প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম ১৪ জুলাই বিকেলে জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার ভাটারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। ভাটারা স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে এ জনসভার আয়োজন করা হয়। জনসভা মঞ্চে উঠার আগে তিনি ২ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ভাটারা স্কুল ও কলেজের চারতলা ভবন উদ্বোধন করেন।

জনসভায় প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম আরও বলেন, সরিষাবাড়ী আসন জাতীয় পার্টিকে দিলে তো কোনো সমস্যা নাই। আমরা তো জামালপুরের নেতারা আছিই। শেখ হাসিনা আপনাদের সাথে আছে। শেখ হাসিনা আপনাদের সাথে থাকবে। অতএব সরিষাবাড়ীতে যদি জাতীয় পার্টির এমপিও আসে। সরিষাবাড়ীর উন্নয়ন কাজ কিন্তু থেমে থাকবে না। তিনি আবারও বলেন, আপনারা যদি নৌকা পেতে চান শেখ হাসিনা যাকে নৌকা দিবে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে তার পক্ষে কাজ করতে হবে। এমন প্রতিশ্রুতি যদি দেন তাহলে হয়তো শেখ হাসিনা বিবেচনা করতে পারবেন। আজকে আপনাদের মনোভাব বুঝলাম। আমরা জেলা ও উপজেলার নেতৃবৃন্দ চেষ্টা চালিয়ে যাবো সরিষাবাড়ীতে যাতে নৌকা মার্কার প্রার্থীকে মনোনয়ন দেওয়া হয়।

সরিষাবাড়ীতে লাঙলের ফলায় নাকি আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিদীর্ণ হয়ে গেছে। জনসভা মঞ্চে উপজেলা পর্যায়ের আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের এমন কথাবার্তা শুনে প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম তাদের উদ্দেশে বলেন, লাঙলের এমপি থাকার কারণে সরিষাবাড়ীর কোনো উন্নয়ন কি থেমে আছে? থেমে নেই। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজে সরিষাবাড়ীর উন্নয়নে কাজ করছেন। আওয়ামী লীগের এমপি না থাকলেও গত পাঁচ বছরে সরিষাবাড়ীর অনেক নেতা-কর্মীদের অন্তত ২ থেকে ২ থেকে ৫ কেজি করে ওজন বেড়েছে। তিনি প্রশ্ন করেন, ওজন কি এমনেই বাড়ে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরিষাবাড়ীতে একটি কলেজ ও একটি স্কুল সরকারি করেছেন। গতবার শেখ হাসিনা রাজনৈতিক কারণে মহাজোট করার কারণে এই আসনটি জাতীয় পার্টিকে দিয়েছেন। জাতীয় পার্টিকে দিয়ে দিয়েছে বলেই শেখ হাসিনা সরিষাবাড়ীকে ভুলে গেছে এই কথাটি কিন্তু ঠিক না। একটি ৬০ কোটি টাকার এবং আরেকটি ২৭ কোটি টাকার প্রকল্প এই সরিষাবাড়ী উপজেলার জন্য আমি নিয়ে এসেছি। দুই মাস আগে সরিষাবাড়ী পৌরসভার জন্য শেখ হাসিনা ১০ কোটি টাকার বরাদ্দ দিয়েছেন। জামালপুরের পৌরসভাগুলোর জন্য ৬০০ কোটি টাকার প্রকল্পের মধ্যে সরিষাবাড়ী পৌরসভার জন্য ৬০ কোটি টাকার বরাদ্দ রাখা হয়েছে। এই সরিষাবাড়ীতে অন্তত ৫০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন বিল্ডিং নির্মাণ করা হয়েছে। কমপক্ষে ২০টি স্কুল কলেজ, মাদরাসার বিল্ডিং নির্মাণ করা হয়েছে। জামালপুর-সরিষাবাড়ী রাস্তা প্রশস্ত করার জন্য শেখ হাসিনা ৪০০ কোটি টাকার বরাদ্দ দিয়েছেন। আরও অনেক কিছু দিয়েছেন। সরিষাবাড়ীর উন্নয়নের জন্য শেখ হাসিনা অনেক কাজ করছেন।

প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম জাতীয় রাজনীতি প্রসঙ্গে বলেন, দীর্ঘ ৪৭ বছর বাংলাদেশ শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ ছিল, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মধ্যদিয়ে শহীদদের আত্মা শান্তি লাভ করেছে। বিএনপি-জামাত জোট সরকার ক্ষমতায় এলে দুর্নীতির মাধ্যমে দেশকে পেছনে নিয়ে যাবে। বিএনপির নেত্রী খালেদা জিয়া এতিমের টাকা মেরে দুর্নীতির মামলায় জেল খাটছেন। আর তার ছেলে তারেক রহমান দেশের মানুষের রক্ত শোষণ করে বিদেশে বসে এখন দেশের বিরুদ্ধে ষঢ়যন্ত্র করছেন। আওয়ামী লীগকে পুনরায় ক্ষমতায় এনে এ সব বন্ধ করতে হবে।

মির্জা আজম বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার উন্নয়নের সরকার, শেখ হাসিনা যা প্রতিশ্রুতি দেন তাই বাস্তবায়ন করেন। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন চীন-ভারতের মতই উন্নয়নশীল দেশ। বিশ্বনেতাদের কাছে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল। আমরা এখন বিদেশি সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল নই। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ ইউরোপ-আমেরিকার মত উন্নত হবে।

ভাটারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু সামার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত জনসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আইনজীবী মুহাম্মদ বাকী বিল্লাহ। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহম্মেদ চোধুরী, তেজগাঁও কলেজের অধ্যক্ষ ও তেজগাঁ থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যক্ষ আবদুর রশীদ, সরিষাবাড়ী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ হারুন অর রশিদ, সাবেক সংসদ সদস্য চিকিৎসক মুরাদ হাসান, ভাটারা স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ মো. জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। জনসভা পরিচালনা করেন ভাটারা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বোরহান উদ্দিন বাদল।

Views 75   ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *