বকশীগঞ্জে ১৭ কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ, কালো টাকা ছড়ানোর অভিযোগ!

বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠি ডটকম

জামালপুরের বকশীগঞ্জে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যতই দিন ঘনিয়ে আসছে ততই নির্বাচনী উত্তাপ বাড়ছে। নির্বাচনে প্রার্থীরা রাত দিন পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এই নির্বাচনে ১০ মার্চ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এবার ৫২টি কেন্দ্রে ১ লাখ ৫৭ হাজার ভোটার তাদের ভোট প্রদান করবেন। ইতোমধ্যে নির্বাচনে ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, পঞ্চম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে এ উপজেলায় ভোট হবে। নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন সাবেক তিনবারের উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রউফ তালুকদার। তার প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মাঠে আছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বিজয়। বিএনপির সমর্থিত স্বতন্ত্র্র প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন আরিফুর রহমান পাভেল নামে এক জাহাজ ব্যবসায়ী। উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ আদা-জল খেয়ে মাঠে নেমেছে এই ব্যবসায়ীর পক্ষে। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আটজন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে তিনজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচন উপলক্ষে প্রার্থীরা বিরামহীন প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন । যার যার অবস্থান থেকে সেই সেই বিজয়ী হওয়ার জন্য মাঠে কাজ করছেন। মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে মাঠে কাজ করছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রউফ তালুকদার। তিনি এর আগে টানা তিনবার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এবারও এর ব্যতিক্রম হবে না বলে জানিয়েছেন তার সমর্থকরা। সেই হিসেব করে নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সাতটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভায় চষে বেড়াচ্ছেন তিনি। পূর্বের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে এবারও চেয়ারম্যান হতে চান এই নেতা। নির্বাচনের দিন ভোটের সুষ্ঠু পরিবেশ সঠিক রাখতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

তিনি ৫২টি কেন্দ্রের মধ্যে ১৭টি কেন্দ্র নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। ওই কেন্দ্রগুলোতে বিশেষ নিরাপত্তা ও প্রতি কেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী হাকিম দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন । কেন্দ্রগুলো হলো- বকশীগঞ্জ সরকারি কিয়ামত উল্লাহ কলেজ, টিকরকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাদারের চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ভাটি কলকিহারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, রবিয়ারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, জানকিপুর দাখিল মাদরাসা , বিনোদর চর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় , নিলক্ষিয়া আর জে পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, আচ্চাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আইরমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ধানুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সুভাসপুুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সারমারা নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় , সারমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চন্দ্রাবাজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘাডুবি দাখিল মাদরাসা ও আলীর পাড়া উচ্চ বিদ্যালয়।

অন্যদিকে মাঠে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সাইফুল ইসলাম বিজয়। তিনি তার কর্মী সমর্থকদের নিয়ে নৌকার পক্ষে ভোট চেয়ে যাচ্ছেন। নির্বাচিত হতে ভোটারদের দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। পাশাপাশি সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডও ভোটারদের সামনে তুলে ধরছেন।

অপরদিকে নির্বাচনে কালো টাকার ছড়াছড়ি নিয়েও প্রার্থীদের মধ্যে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। জাহাজ ব্যবসায়ী ও বিএনপি সমর্থিত স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী আরিফুর রহমান পাভেলকে নিয়ে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন অন্য প্রার্থীরা। এই ব্যবসায়ী এলাকায় ভোটারদের মাঝে কালো টাকা ছড়িয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন। রাজনীতিতে নতুন হলেও উপজেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ তার সঙ্গে থাকায় খোশ মেজাজে রয়েছেন আনারস প্রতীক নিয়ে প্রার্থী হওয়া স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুর রহমান পাভেল। ভোটারদের মাঝে অ্যাম্বুলেন্স দেওয়ার ঘোষণা দেওয়ায় তাকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ছাড়াও প্রতিনিয়ত ভোটারদেরকে কালো টাকা ছড়িয়ে কাছে টানার চেষ্টা করছেন আরিফুর রহমান পাভেল।

ভোটাররা যাতে বিভ্রান্ত না হয় সে দিকে নজর রাখতে উপজেলা প্রশাসন ও নির্বাচন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন অন্যান্য প্রার্থীরা।

উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা ও বকশীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশিকুর রহমান বাংলারচিঠি ডটকমকে জানান, আমরা সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য সর্বাত্মক নিরাপত্তা গ্রহণ করেছি। কোনো কেন্দ্রে বিশৃঙ্খলা হলে সঙ্গে সঙ্গে ভোটগ্রহণ বন্ধ করার জন্য প্রিজাইডিং কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

Views 26 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad