সরিষাবাড়ীতে গরুচুরি ও মাদক প্রতিরোধে সেচ্ছাসেবী কমিটি গঠিত

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় সম্প্রতি গরুচুরি ও মাদক ব্যবসায়ীদের দৌড়াত্ব বেড়ে যাওয়ায় এর প্রতিরোধে ২৩ নভেম্বর সকালে জাগ্রত’৭১ এর ব্যানারে স্বেচ্ছাসেবক কমিটি গঠন করা হয়েছে। উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলামকে সভাপতি ও আবু বক্কর এবং রেজাউল করিম রিজুকে গ্রুপ প্রধান করে ৫১ সদস্য সেচ্ছাসেবী কমিটি গঠন করা হয়।

জানা যায়, সম্প্রতি জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলার কামরাবাদ ইউনিয়নের একই বাড়ির তিন কৃষকের ১০টি গরু, মহাদান ইউনিয়নে দুই কৃষকের ৪টি, আওনা ইউনিয়নে ২টি, ডোয়াইল ইউনিয়নের চাপারকোনা গ্রামে ১০টিসহ বিভিন্ন এলাকায় দুই সপ্তাহ ব্যবধানে ৫০টি গরুচুরির ঘটনা ঘটে। এছাড়াও প্রতিনিয়ত এ উপজেলায় যেমন গরু চুরির ঘটনা বেড়েই চলছে এবং মাদক ব্যবসায়ীদের দৌড়াত্ব লাগামহীন। এলাকায় ব্যাপক গরু চুরির উৎপাত বেড়ে যাওয়ায় নিদ্রাহীন হয়ে পড়েছে এলাকার কৃষকজনতা। বিভিন্ন মোড়, রেল লাইনের ফাঁকা জায়গা, চরাঞ্চল এলাকায়, নদীপাড় এলাকাসহ মাদক ব্যবসায়ীদের দৌড়াত্ব বেড়ে গেছে। এর ফলে এলাকাবাসীর সম্মিলিত উদ্যোগ জরুরি হওয়ায় সরিষাবাড়ী উপজেলার যুবলীগের সভাপতি ও জাগ্রত ৭১ এর সভাপতি এ কে এম আশরাফুল ইসলাম মাদক ও গরুচুরির প্রতিরোধে কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেন।

এ নিয়ে ২৩ নভেম্বর সকালে কামরাবাদ ইউনিয়নের শুয়াকৈর, চরহেলেঞ্চাবাড়ী গ্রামের কাছের সেতু এলাকায় এক আলোচনা সভা হয়। পরে আবু বকর সিদ্দিক ও রেজাউল করিম রিজুকে গ্রুপ প্রধান, এ কে এম আশরাফুল ইসলামকে সভাপতি করে মাদক ও গরুচুরি প্রতিরোধে ৫১ সদস্য বিশিষ্ট স্বেচ্ছাসেবক কমিটি গঠন করা হয়। টিম লিডারদের নেতৃত্বে স্বেচ্ছাসেবক কর্মীরা পালাক্রমে রাত জেগে পাহারা দিয়ে মাদক ও গরুচুরি প্রতিরোধে কাজ করে যাবে।

sarkar furniture Ad
Green House Ad