দেশে ২৪ ঘন্টায় করোনায় আক্রান্ত ৫৪৯, মারা গেছেন ৩ জন

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক : দেশে গত ২৪ ঘন্টায় নতুন ৫৪৯ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। বর্তমানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত ৬ হাজার ৪৬২ জন। গত ২৪ ঘন্টায় ৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এদের সবাই ষাটোর্ধ্ব ও ঢাকার বাসিন্দা। এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১৫৫ জন।

২৮ এপ্রিল দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস সংক্রান্ত নিয়মিত অনলাইন হেলথ বুলেটিনে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক চিকিৎসক নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

গতকালের চেয়ে আজ আক্রান্ত ৫২ জন বেশি। গতকাল আক্রান্ত হয়েছিলেন ৪৯৭ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় দেশে আরও ৮ জন করোনামুক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে ১৩৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি গেছেন।

চিকিৎসক নাসিমা সুলতানা জানান, ‘করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ৩০৯টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। আগের দিন নমুনা সংগ্রহ হয়েছিল ৪ হাজার ১৯২টি।আমাদের নমুনা সংগ্রহ আগের দিনের তুলনায় ২ দশমিক ৭৯ শতাংশ বেশি। গত ২৪ ঘন্টায় নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৪ হাজার ৩৩২টি। আগের দিন পরীক্ষা হয়েছিল ৩ হাজার ৮১২টি। গতকালের চেয়ে নমুনা পরীক্ষা প্রায় ১৩ দশমিক ৬৪ শতাংশ বেশি। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৪ হাজার ৭৩৩টি।’

তিনি বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় যারা সুস্থ হয়েছেন, তারা হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েই হয়েছেন। আক্রান্ত ব্যক্তিদের যারা বাড়িতে অবস্থান করে সুস্থ হন, তাদের তথ্য আমরা এখানে দেই না। আশা করছি, ভবিষ্যতে তাদের তথ্য সংগ্রহ করে আপনাদের জানাতে পারবো।’

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ১১১ জনকে। এখন পর্যন্ত মোট আইসোলেশনে রাখা রোগীর সংখ্যা ১ হাজার ২৪৮ জন। ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৪৭ জন। এখন পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৭৮৫ জন। সারাদেশে আইসলেশন শয্যা আছে ৯ হাজার ৭৩৮টি এবং ঢাকা শহরে আছে ৩ হাজার ৯৪৪টি। ঢাকা শহরের বাইরে ৫ হাজার ৯৯৪টি রয়েছে।

তিনি জানান, আইসিইউ সংখ্যা আছে ৩৪১টি এবং ডায়ালাইসিস ইউনিট আছে ১০২টি।

অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় প্রাতিষ্ঠানিক ও হোম কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে ২ হাজার ৩৯২ জনকে। এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৮১ হাজার ৭৯৩ জনকে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে। কোয়ারেন্টিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় ছাড় পেয়েছেন ৩ হাজার ২৩১ জন, বর্তমানে মোট কোয়ারেন্টিনে আছেন ৭৬ হাজার ৮৪০ জন।

তিনি জানান, সারাদেশের ৬৪ জেলা এবং সেখানকার উপজেলায় প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ৬০১টি প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ হাজার ৬৩৫ জনকে কোয়ারেন্টাইন সেবা দেয়া যাবে।

অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘন্টায় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) সংগ্রহ হয়েছে ৮৩ হাজার ৫৩৫টি। বিতরণ হয়েছে ১৮ হাজার ৫০টি। এ পর্যন্ত সংগ্রহ হয়েছে ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৫৯২টি। বিতরণ হয়েছে ১৩ লাখ ৯ হাজার ১৪৮টি। ৩ লাখ ৪১ হাজার ৪৪৪টি মজুদ রয়েছে।

অতিরিক্ত মহাপরিচালক জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হটলাইন নম্বরে ৭২ হাজার ৪৪৭ জনকে এবং এ পর্যন্ত প্রায় ৩৫ লাখ ৫৮ হাজার জনকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া মোবাইল ও ওয়েবসাইটে গত ২৪ ঘন্টায় ৩১ হাজার ১২৪ জন এবং এ পর্যন্ত ১৫ লাখ ৩৬ হাজার ২১৭ জনকে স্বাস্থ্য পরামর্শ ও চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়েছে।

ডা.নাসিমা সুলতানা জানান, দেশের বিমানবন্দর, স্থল, নৌ ও সমুদ্রবন্দর দিয়ে গত ২৪ ঘন্টায় ৫০১ জনসহ সর্বমোট বাংলাদেশে আগত ৬ লাখ ৭৫ হাজার ৭৮২ জনকে স্কিনিং করা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমন ঠেকাতে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলতে তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে সবাইকে ঘরে থাকা, রমজানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, বেশি বেশি পানি ও তরল জাতীয় খাবার, ভিটামিন সি ও ডি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া, টাটকা ফলমূল ও সবজি খাওয়াসহ শরীরকে ফিট রাখতে নিয়মিত হালকা ব্যায়াম এবং স্বাস্থ্য অধিদফতর ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরামর্শ-নির্দেশনা মেনে চলার অনুরোধ জানানো হয়।সূত্র:বাসস।

Views 22 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad