বকশীগঞ্জ পৌরসভার স্থগিত এক কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের নির্দেশ উচ্চ আদালতের

বকশীগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠি ডটকম

নব গঠিত বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে স্থগিত এক কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের পক্ষে রায় দিয়েছে উচ্চ আদালত। এই রায়ের মাধ্যমে বকশীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে এক কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

এ সংক্রান্ত রিটের পরিপ্রেক্ষিতে জারি করা রুলের চূড়ান্ত শুনানি নিয়ে ৩১ অক্টোবর উচ্চ আদালতের বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ নির্দেশ দেন।

আদালতে মেয়র প্রার্থী নজরুল ইসলাম সওদাগরের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী শেখ জাহাঙ্গীর আলম। অন্যদিকে আরেক প্রার্থী শাহিনা বেগমের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী বাসেত মজুমদার, আব্দুল মতিন খসরু ও নুরুল ইসলাম সুজন। নির্বাচন কমিশনের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী তৌহিদুর রহমান।

এর আগে ২০১৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর জামালপুরের বকশীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ১২টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ভোটের দিন ১১টি কেন্দ্র নিয়ে কোনো প্রশ্ন না তুললেও একটি ভোট কেন্দ্রে অনিয়ম করা হয়েছে বলে ভোটগ্রহণ এবং ফলাফল ঘোষণা বন্ধ রাখা হয়। এরপর পৌর নির্বাচনে ৩য় স্থান অধিকারী সরকারি দল আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহিনা বেগম ৭টি কেন্দ্রে পুনঃনির্বাচনের দাবি জানিয়ে উচ্চ আদালতে রিট করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে নির্বাচন স্থগিতসহ রুল জারি করেন আদালত।

৩১ অক্টোবর ওই রুলের চূড়ান্ত শুনানি শেষে রায় ঘোষণা করেন আদালত। আদেশে স্থগিত মালিরচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট গ্রহণের পক্ষে রায় ঘোষণা করা হয়।

২০১৭ সালের ২৮ ডিসেম্বর নির্বাচনে ১২টি কেন্দ্রে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ১১টি কেন্দ্রের ফলাফলে স্বতন্ত্র প্রার্থী নজরুল ইসলাম সওদাগর জগ প্রতীক নিয়ে ৮ হাজার ৫৯৯ ভোট পান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী ফখরুজ্জামান মতিন ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে ৭ হাজার ৭০৫। আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহিনা বেগম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ১৬০ ভোট পেয়ে ৩য় স্থান অর্জন করেন।

  ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad