অটোরিকশার ধাক্কায় নার্সারি শ্রেণির ছাত্রী সমৃদ্ধি নিহত

সমৃদ্ধি ধর প্রিয়ন্তী। তার মৃত্যুতে বসাকপাড়ার বাসায় স্বজনদের আহাজারি। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক, বাংলারচিঠিডটকম: জামালপুরে স্কুল থেকে পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে দাদির সাথে বাসায় ফেরার পথে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার সাথে ধাক্কা লেগে সমৃদ্ধি ধর প্রিয়ন্তী (৬) নামের একশিশু শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। ৬ জুলাই দুপুরে শহরের বকুলতলা এলাকায় প্রধান সড়কে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। শিশুটির মৃত্যুতে তার পরিবারে শোকের মাতম চলছে। দুর্ঘটনার পর অটোরিকশাটি নিয়ে চালক পালিয়ে গেছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জামালপুর শহরের বসাকপাড়া এলাকার ব্যবসায়ী সৌমিক কান্তি ধরের এক মেয়ে ও এক ছেলের মধ্যে শিশু শিক্ষার্থী সমৃদ্ধি ধর প্রিয়ন্তী প্রথম সন্তান। সমৃদ্ধি জামালপুর শহরের বকুলতলা এলাকায় ডলফিন বে কিন্ডার গার্টেনে নার্সারি শ্রেণিতে পড়ত। ৬ জুলাই সকালে সমৃদ্ধি তার দাদি রমা রানী ধরের সাথে সাময়িক পরীক্ষার ফলাফল আনার জন্য স্কুলে গিয়েছিল। পরীক্ষায় সে ভালো ফলাফলও অর্জন করে। পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে স্কুল থেকে বেরিয়ে দাদির সাথে প্রধান সড়কের কাছে গিয়ে একাই দৌড় দিয়ে সড়ক পাড় হওয়ার চেষ্টা করে সমৃদ্ধি। এ সময় দ্রুতগামী একটি অটোরিকশার সাথে সজোরে ধাক্কা লেগে গুরুতর আহত হয় সে। অটোর ধাক্কায় তার নাক-মুখ দিয়ে প্রচুর রক্তপাত হয়। স্থানীয়রা তাকে দ্রুত জামালপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে সে মারা যায়। পরে স্বজনরা সমৃদ্ধির মরদেহ বাসায় নিয়ে যায়।

৬ জুলাই বিকেলে নিহত শিশুটির বাসায় গিয়ে দেখা যায়, পরিবারের স্বজনদের মাঝে শোকের মাতম চলছে। সমৃদ্ধি নিহত হওয়ার ঘটনার কথা জানতে পেরে তাদের পরিবারের আত্মীয়স্বজন, প্রতিবেশী, স্কুলের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে অনেক লোকজন তাদের বাড়িতে ভিড় করেছেন। শহরের প্রধান সড়কে অটোরিকশার ধাক্কায় শিশু সমৃদ্ধির এভাবে মৃত্যুর ঘটনায় সবাইকে হতবাক করেছে।

শিশু সমৃদ্ধির বাবা সৌমিক কান্তি ধর বাংলারচিঠিডটকমকে বলেন, আমার আদরের মেয়েটির মৃত্যুতে আমি নির্বাক হয়ে গেছি। ঘটনার সময় আমার ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে ছিলাম। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে হাসপাতালে যাই। মেয়েটার মৃত্যুতে আমার অনেক ক্ষতি হয়ে গেল। সদর থানা থেকে পুলিশ এসেছিল বাসায়। আমি তাদের কাছে কোন অভিযোগ করিনি। তবে অটো বা অন্যকোনো গাড়িতে যেন দুর্ঘটনায় কারো প্রাণ না যায় তার জন্য ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণসহ প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেছি। ৬ জুলাই রাতে জামালপুর শহরের মহাশ্মশানে শিশু সমৃদ্ধির মরেদেহের শেষকৃত্যাদি সম্পন্ন করা হয়।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহনেওয়াজ বাংলারচিঠিডটকমকে বলেন, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। স্থানীয়রা জানিয়েছে, দুর্ঘটনার পরপরই অটোরিকশা নিয়ে এর চালক দ্রুত সেখান থেকে সটকে পড়েছে। নিহত শিশু সমৃদ্ধির বাসায়ও পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। কিন্তু শিশুটির বাবা সৌমিক কান্তি ধর পুলিশের কাছে কোন অভিযোগ করেননি।

sarkar furniture Ad
Green House Ad