মনিরাজপুরে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় শিশু সুবর্না নিহত

নিহত শিশু সুবর্নার মা সিমু বেগমের আহাজারি। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরে দ্রুতগামী প্রাইভেটকারের ধাক্কায় সুবর্না আক্তার (১০) নামের তৃতীয় শ্রেণির একছাত্রী নিহত হয়েছে। ২৮ নভেম্বর সকাল ৭টার দিকে জামালপুর শহরের নতুন বাইপাস সড়কের মনিরাজপুর মোড়ে এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে। শিশুটি বাড়ির কাছেই মসজিদের মক্তবে আরবি পড়া শেষে বাড়িতে ফিরছিল। স্থানীয় দরিদ্র অটোরিকশাচালক মো. সজিবের মেয়ে সে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জামালপুর শহরের মনিরাজপুর গ্রামের দরিদ্র অটোরিকশাচালক মো. সজিবের মেয়ে সুবর্না ২৮ নভেম্বর ভোরে বাড়ির কাছেই মসজিদের মক্তবে আরবি পড়া শেষে একাই বাড়িতে ফিরছিল। পথে সকাল ৭টার দিকে নতুন বাইপাস সড়কের মনিরাজপুর মোড়ে দ্রুতগামী একটি প্রাইভেটকার (ঢাকা মেট্রো গ-৩৫-৯৪৩৬) পেছন থেকে সুবর্নাকে ধাক্কা দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পাশের খাদে পড়ে যায়। সুবর্না ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। শহরের বগাবাইদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী সে। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তার স্বজনরা ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ শনাক্ত করেন। এ সময় স্বজনরা তাকে দেখে কান্নায় মুর্ছা যান। দুর্ঘটনার পরপরই প্রাইভেটকারচালক পালিয়ে গেছেন। প্রাইভেটকারটি জব্দ করেছে সদর থানা পুলিশ।

শিশু সুবর্নাকে ধাক্কা দিয়ে সড়কের পাশের খাদে পড়ে যায় প্রাইভেটকার। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

সুর্বনাদের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, তার মা সিমু বেগম মেয়ের মৃত্যুতে আহাজারি করছেন। সুবর্নার বাবা মো. সজিব জানান, স্থানীয়রা গাড়ির মালিক পক্ষের সাথে আপস করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তাই তিনি থানায় কোনো অভিযোগ করেননি। সদর থানার ওসি ময়নাতদন্ত ছাড়াই তার মেয়ের লাশ দাফনের অনুমতি দিয়েছে।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল ইসলাম খান বাংলারচিঠিডটকমকে বলেন, প্রাইভেটকারটি জব্দ করা হয়েছে। এর চালক ও মালিকের নাম পরিচয় জানার চেষ্টা করছি। নিহত শিশুর বাবার আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। পাইভেটকারের ধাক্কায় নিহত শিশুটির পরিবারের কেউ থানায় কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

sarkar furniture Ad
Green House Ad