দেওয়ানগঞ্জে বন্যার আরো অবনতি, ১৯১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ

বন্যার পানি ঢুকেছে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ। ছবি : বিল্লাল হোসেন

দেওয়ানগঞ্জ (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

যমুনা, ব্রহ্মপুত্র ও জিঞ্জিরাম নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার বন্যা পরিস্থিতি আরো ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। ১৬ জুলাই বিকেল থেকে বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি বিপদসীমার ১৪৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উপজেলা প্রশাসনের হিসেব মতে এ উপজেলায় ১ লাখ ৯৭ হাজার মানুষ বন্যায় আক্রান্ত হয়েছে।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বন্যা কবলিত দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ১৬ জুলাই ভোর থেকে উপজেলা পৌরশহর ও আটটি ইউনিয়ন বন্যার পানিতে সয়লাব হয়ে গেছে। দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা পরিষদ ভবন, দেওয়ানগঞ্জ বাজার, সোনালী ব্যাংক, কৃষি ব্যাংক হাটুপানিতে তলিয়ে গেছে। ঢাকা-দেওয়ানগঞ্জগামী রেল যোগাযোগ, সানন্দবাড়ী-রৌমারী সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। বন্যা প্লাবিত হওয়ায় উপজেলার ১৯১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। চিকাজানী ইউনিয়নের চর খোলাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও প্রাথমিক বিদ্যালয়, মসজিদ যমুনার গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন স্থানে বন্যার্তদের জন্য আটটি আশ্রয় কেন্দ্রে খুলেছে। বন্যার্তদের মাঝে স্থানীয় প্রশাসনের উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত রয়েছে।

সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad