সরিষাবাড়ীতে চাচীর চোখে আঘাত করলো ভাতিজা

সরিষাবাড়ী উপ‌জেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আহত না‌সিমা বেগম। ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

মমিনুল ইসলাম কিসমত, সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাচী নাসিমা বেগমকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে ও চোখ উপড়ে ফেলার চেষ্টায় নূরুল ইসলাম ডিপজল নামে ভাতিজার বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। গুরুতর আহত অবস্থায় নাসিমা বেগমকে সরিষাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ৯ জুন সন্ধ্যায় পৌরসভার বাউসী বাঙ্গালী পাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, পৌরসভার বাউসী বাঙ্গালী পাড়া গ্রামের ইউসুফ আলীর স্ত্রী নাসিমা বেগম (৩২)। একই বসত ভিটার সীমানার মাটি নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল ইউসুফ আলী ও তার ভাতিজার মধ্যে। ৯ জুন সকালে এ মাটি কাটা নিয়ে ইউসুফ আলীর বড় ভাই মৃত হাসমত আলীর ছেলে নুরুল ইসলাম ডিপজলের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এতে ক্ষোভে ফোঁসে উঠে ভাতিজা ডিপজল। পরে ইউসুফ আলী সীমানার মাটি কেটে নেয়ার চেষ্টা চালায় ডিপজল। এ সময় চাচী নাসিমা বেগম বাঁধা দিলে তার উপর চড়াও হয়ে লাঠি দিয়ে এলোপাথারি পিটাতে থাকে। নাসিমা বেগম আহত হয়ে মাটিতে পড়ে গেলে তার বাঁ চোখ উপড়ে ফেলার চেষ্টা চালায় ভাতিজা ডিপজল। এতে চোখটি রক্তাক্ত হয়ে যায়। এ সময় স্ত্রীকে বাঁচাতে গেলে স্বামী ইউসুফ আলীকে মারধর করে। তাদের ডাকচিৎকারে আশপাশের লোকজন গিয়ে তাদেরকে উদ্ধার করে সরিষাবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

ভাতিজা নূরুল ইসলাম ডিপজল মারধরের ঘটনা অস্বীকার করেন বলেন, চাচা ইউসুফ আলী মাদক কারবারের সাথে জড়িত। বিভিন্ন সময় দল বেঁধে বসত বাড়ির ভিতরে গাঁজার আসর বসায়। ৯ জুন প্রতিবাদ করায় চাচা ইউসুফ আলী উত্তেজিত হলে কথা কাটাকাটি হয়। কাউকে মারধর করা হয়নি।

এ ব্যাপারে স্থানীয় কাউন্সিলর আব্দুল মালেক জানান, তুচ্ছ ঘটনায় চাচা ভাতিজার মধ্যে মারামারির ঘটনায় ইউসুফের স্ত্রীকে মারধর করেছে এবং তার একটি চোখের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

Views 26 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad