হারিয়ে যাওয়া দুই শিশু জামালপুর থেকে ফেরত গেলো মায়ের কোলে

হারিয়ে যাওয়া দুই শিশুকে জামালপুর শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র থেকে অভিভাবকদের হাতে হস্তান্তর করা হয়। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

ভুল করে ভুল পথে চলে আসা স্বজনদের কাছ থেকে হারিয়ে যাওয়া দুই শিশু ইয়াসিন (৯) এবং আছাদুজ্জামান (১৩) জামালপুর থেকে ফিরে গেলো মায়ের কোলে। সমাজসেবা অধিদপ্তরের আওতাধীন জামালপুরে স্থাপিত শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র (বালক) থেকে ৫ ফেব্রুয়ারি আনুষ্ঠানিকভাবে শিশু দুইজনকে যার যার বাবার হাতে হস্তান্তর করা হয়।

হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক গোলাম মোস্তফা, সদর উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শিরিনা পারভীন, উন্নয়ন সংঘের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক জাহাঙ্গীর সেলিম, সংস্থার আইআইআরসিসিএল প্রকল্পের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মিনারা পারভীন, সমাজকর্মী আরজু মিয়া, শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র (বালক) এর মনোবিদ মনিরুজ্জামান, সমাজকর্মী আরমান আলী, সুশান্ত কুমার প্রমুখ।

জানা যায়, গত ৩ ফেব্রুয়ারি হারানো শিশু ইয়াসিনের খবর পেয়ে জামালপুর রেলওয়ে থানায় ছুটে গিয়ে শিশুটির ব্যপারে সাধারণ ডায়েরি করেন উন্নয়ন সংঘের আইআইআরসিসিএল প্রকল্পের আঞ্চলিক ব্যবস্থাপক মিনারা পারভীন। পরে সেখান থেকে শেখ রাসেলের সমাজকর্মী আরমান আলীর সহায়তায় তাকে নিরাপদ আশ্রয় হিসেবে নিয়ে আসা হয় শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে (বালক)। ফেসবুকে শিশুটির ছবিসহ হারিয়ে যাওয়ার ঘটনাটি তুলে ধরলে পরদিন শিশুটির অভিভাবকগণ ফেসবুকে উল্লেখিত জাহাঙ্গীর সেলিমের মোবাইল নম্বরে যোগাযোগ করেন এবং ৫ ফেব্রুয়ারি ইয়াসিনের বাবা হাদিউল ইসলামসহ বড় ভাই জামালপুরে ছুটে আসেন।

একইদিন নীলফামারী থেকে সাত মাস আগে হারিয়ে যাওয়া মাতৃহীন শিশু আছাদুজ্জামানের বাবা আমিনুল ইসলাম ছেলের সন্ধান পেয়ে পাগলের মতো ছুটে আসেন জামালপুরে। একই সাথে দুই শিশুকে হস্তান্ত করা হয়।

উল্লেখ, জামালপুরে শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে এখানে বিপদাপন্ন শিশুদের নিরাপদ আশ্রয়ের ঠিকানা হয়েছে। কোনো শিশু হারিয়ে অথবা পাচারের হাত থেকে উদ্ধার হবার পর এই কেন্দ্রে রাখা হয়। পরে বিভিন্ন মাধ্যমে যোগাযোগ করে অভিভাবকদের ঠিকানা সন্ধান করে যুক্ত প্রমাণ সাপেক্ষে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়। সরকারের সমাজসেবা অধিদপ্তরের নিয়ন্ত্রণাধীন শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র (বালক ও বালিকা) কেন্দ্র দুটি স্থাপিত হওয়ায় জামালপুরবাসী সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

সূত্র জানায়, বর্তমানে বালক কেন্দ্রে আছে ৯০ জন এবং বালিকা কেন্দ্রে আছে ৭৬ জন শিশু। এ ছাড়া এ পর্যন্ত ৪৬ জন মেয়ে ও ৭৫ জন ছেলেকে পরিবারের সাথে একীভূত করা সম্ভব হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উন্নয়ন সংঘের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক মানবাধীকারকর্মী জাহাঙ্গীর সেলিম বলেন, আমাদের সংস্থা জন্মলগ্ন থেকে শিশু সুরক্ষা নিয়ে কাজ করে আসছে। বিশেষ করে আইনের সংস্পর্শে বা সংঘাতে আসা শিশু, হারিয়ে যাওয়া শিশু, পাচারের শিকার শিশুদের এতোদিন সাময়িকভাবে রাখার কোনো নির্ভরযোগ্য প্রতিষ্ঠান ছিলো না। অপরাজেয় বাংলাদেশ নামে একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান থাকলেও তহবিল সঙ্কটের কারণে সংস্থাটি অনেক সীমাবদ্ধতা এবং সমস্যায় আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা হওয়ায় জামালপুরের জন্য আশির্বাদ হয়েছে।

Views 61 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad