ডিসির আদেশ উপেক্ষা সা’দপন্থিদের, আলেমরা বিক্ষুব্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

জামালপুরের দিগপাইতে ইকোনোমিক জোন মাঠে ইজতেমা আয়োজন না করে সেখানে ২৪ ঘন্টার জন্য ‘শান্তিপূর্ণ ধর্মসভা’ আয়োজনের অনুমতি দিয়েছেন জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর। কিন্তু সাদপন্থিরা জেলা প্রশাসকের আদেশের কোনো তোয়াক্কা না করে সেখানে তিনদিনব্যাপী ইজতেমা আয়োজনের প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে।

জানা গেছে, দিগপাইতে ইকোনোমিক জোন মাঠে মাওলানা সা’দপন্থিদের ইজতেমা আয়োজন বন্ধ করার দাবিতে সা’দপন্থিদের তথাকথিত ইজতেমা প্রতিরোধ কমিটির ব্যানারে ইজতেমার মূলধারার আলেম-ওলামারা ২২ অক্টোবর শহরে গণজমায়েত, বিক্ষোভ মিছিল ও জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও কর্মসূচি পালন করেন।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর ২৪ অক্টোবর সকালে তার কার্যালয়ে দু’পক্ষের সাথে বৈঠক করেন। ওই বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ইকোনোমিক জোন মাঠে ইজতেমা আয়োজন না করে সেখানে ১ নভেম্বর আসর নামাজের পর থেকে ২ নভেম্বর আসর নামাজ পর্যন্ত ‘শান্তিপূর্ণ ধর্মসভা’র আয়োজন করার আদেশ জারি করেন।

এদিকে সা’দপন্থিদের তথাকথিত ইজতেমা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মুফতি আব্দুল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, সা’দপন্থি মোস্তফা কামাল জেলা প্রশাসকের আদেশ উপেক্ষা করে তিনি এবং তার অনুসারীরা সারা জেলায় ইজতেমার দাওয়াত প্রচার করছেন। তারা ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছে – ‘কারো গুজবে কান না দেই। জামালপুরে ইজতেমা হবে। ই-জেড ময়দানে এসে দেখে যাওয়ার অনুরোধ রইলো।’ এটি ছাড়াও তারা আরো কয়েকটি স্ট্যাটাস দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছে।

মুফতি আব্দুল্লাহ আলো অভিযোগ করে বলেন, সা’দপন্থি মোস্তফা কামালের অনুসারী স্বপন নামের এক ব্যক্তি আমাদের অনুসারী আনোয়ার হোসেন আনারকে (৩৬) ২৩ অক্টোবর সন্ধ্যায় বেলটিযা জামে মসজিদের সামনে বেধড়ক মারপিট করেছে। বর্তমানে আনোয়ার জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক।

মুফতি আব্দুল্লাহ আরো বলেন, আমরা জেলা প্রশাসকের সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছি। কিন্তু মোস্তফা কামাল ও তার অনুসারীরা সেই আদেশ উপেক্ষা করায় সারা জেলায় আলেম ওলামাদের মাঝে ফের ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। আমরা তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনি পদক্ষেপসহ ইজতেমা আয়োজন বন্ধ ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।

সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad