জীবিত আছি, ভোটটা নষ্ট করমু ক্যান : অসুস্থ ভোটার জয়ন্তী

জয়ন্তী সরকারকে কোলে করে ভোট কক্ষে নিয়ে যাচ্ছেন নাজিম উদ্দিন নাজিম। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম
জয়ন্তী সরকারকে কোলে করে ভোট কক্ষে নিয়ে যাচ্ছেন নাজিম উদ্দিন নাজিম। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

মোস্তফা মনজু, বকশীগঞ্জ থেকে॥
‘জীবিত আছি। ভোটটা নষ্ট করমু ক্যান। কালকে থেইকা কানতাছি ভোটের জন্য। তাই আইলাম ভোট দিবার জন্য।’ বললেন জয়ন্তী সরকার। বয়স ৬৮ বছর। বাড়ি জামালপুরের বকশীগঞ্জ মধ্যবাজার এলাকায়।

বেলা দেড়টার দিকে বকশীগঞ্জ সরকারি কিয়ামত উল্লাহ কলেজ কেন্দ্রের বাইরে এক ব্যক্তি জয়ন্তী সরকারকে কোলে করে ভোট কেন্দ্রে আসছিলেন। পরে জানা গেল ওই ব্যক্তি ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী নাজিম উদ্দিন নাজিম। জয়ন্তী সরকারের সাথে কোনো পুুরুষ লোক না থাকায় তিনিই তাকে ভোট কক্ষে নিয়ে গেলেন।

জয়ন্তী সরকারের বড় মেয়ে ময়না সরকার বললেন, আমার মা ডায়াবেটিস ও স্ট্রোক করাসহ বিভিন্ন অসুখে ভোগছেন। মা কোনোদিনই ভোট দেওয়া বাদ দেন নাই। আজকে যে বকশীগঞ্জ পৌরসভার ভোট এজন্য তিনি কালকে থেইকাই বাসায় কান্নাকাটি করেন ভোট দেওয়ার জন্য। তাই তাকে নিয়ে ভোট কেন্দ্রে আইছি। মা ভোট দিছে। মায়ের জন্য আশীর্বাদ করবেন।

ভোট দেওয়া শেষে জয়ন্তী সরকার বললেন, আমি একবারও ভোট দেওয়া বাদ দেই নাই। আইজও ভোট দিলাম। জীবিত আছি। ভোট নষ্ট করমু ক্যান। কয়দিন আর বাঁচমু। আইজকে ভোট দিয়া শান্তি পাইলাম।

কাউন্সিলর প্রার্থী নাজিম উদ্দিন বললেন, উনি অসুস্থ মানুষ। তাই তারে কোলে কইরা আইনা ভোট দেওয়ার ব্যবস্থা করলাম। উনি আমার মায়ের মতো।