জামালপুরে জুয়েলারি দোকানে চুরি, কর্মচারী পলাতক

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

জামালপুর শহরের ঢাকাইপট্টি এলাকার কেয়া জুয়েলার্সে চুরির ঘটনা ঘটেছে। একজন কর্মচারী ৩০ ভরি অলংকার চুরি করে পালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন জুয়েলার্সটির স্বত্বাধিকারী।

কেয়া জুয়েলার্সের স্বত্বাধিকারী সুজন দেবনাথ ৩ ডিসেম্বর বলেন, কর্মচারী আনন্দ কর্মকারকে ২ ডিসেম্বর দুপুর তিনটায় দোকানে রেখে আমি ও আরেক কর্মচারী নিরেন কর্মকার বাসায় খাবার খেতে যাই। খাবার খেয়ে নিরেন কর্মকার চারটায় এসে দেখে দোকানের কেচিগেটে তালা লাগানো, ভিতরে আলমারি ভাঙা ও চাবি বাইরে পড়ে আছে। পরে খবর পেয়ে আমি গিয়ে দেখি ১০ ভরি স্বর্ণ ও ২০ ভরি রূপার অলংকার নেই। যার আর্থিক মূল্য প্রায় সাড়ে চার লাখ টাকা।

সুজন দেবনাথ সাথে সাথে আনন্দ কর্মকারের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে ‘আমাকে আর খুঁজবেন না। আমি রৌমারী চলে যাচ্ছি’- এই কথা বলে আনন্দ কর্মকার কল কেটে দেয়। এরপর থেকে তার নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

সুজন দেবনাথ অভিযোগ করে বলেন, দোকানে সিসি ক্যামেরা চালু থাকলেও আনন্দ কর্মকার ক্যামেরা বন্ধ করে দিয়ে এসব অলংকার চুরি করে পালিয়েছে। তার বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতি উপজেলার মগরা উত্তরপাড়া গ্রামে বলে সে জানিয়েছিল। সে কেয়া জুয়েলার্সে গত ৬ মাস ধরে কাজ করছিল।

জামালপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আসাদুজ্জামান জানান, অভিযোগ পেয়ে ৩ ডিসেম্বর দোকান পরিদর্শন করেছি। এ ব্যাপারে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

  ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad