কেন্দুয়া ইউপির কালোবাজারে বিক্রি করা ১৬০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার

কালিবাড়ি বাজার থেকে উদ্ধার ভিজিএফ চাল। ছবি : বাংলার চিঠি ডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর॥
জামালপুর সদর উপজেলার কেন্দুয়া ইউনিয়নের কালিবাড়ি বাজারের খাদ্যব্যবসায়ীর আড়ত থেকে ১৬০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। ১৯ আগস্ট রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম কালিবাড়ি বাজারের খাদ্যব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন মানুর আড়তে এ অভিযান চালান।

জানা গেছে, ঈদুল আযহা উপলক্ষে কেন্দুয়া ইউনিয়নের দু:স্থদের জন্য বরাদ্দের বিপুল পরিমাণ ভিজিএফ চাল কালোবাজারে বিক্রি করা হয়েছে, এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম ১৯ আগস্ট রাত সাড়ে ১১টার দিকে সদরের কেন্দুয়া ইউনিয়নের কালিবাড়ি বাজারে অভিযান চালান। এ সময় খাদ্যব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন মানুর আড়ত থেকে প্রতিটি ৫০ কেজি ওজনের ১৬০ বস্তা ভিজিএফ চাল উদ্ধার করা হয়। জামালপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আসাদুজ্জামান পুলিশফোর্সসহ এ অভিযানে অংশ নেন।

ভিজিএফ চাল কালোবাজারে বিক্রির সাথে জড়িতদের সম্পর্কে ভ্রাম্যমাণ আদালত তাৎক্ষণিকভাবে কোনো কিছু নিশ্চিত হতে পারেনি। অভিযানের সময় আনোয়ার হোসেন মানুকে পাওয়া যায়নি। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার আড়তের দু’জন শ্রমিককে আটক করা হয়েছে। আটক শ্রমিকরা হলেন- কেন্দুয়া ইউনিয়নের চরশি নয়াপাড়া গ্রামের নাছির উদ্দিনের ছেলে আবুল কালাম আজাদ ও কালিবাড়ি গ্রামের মোস্তফা মিয়ার ছেলে মো. জুয়েল। তাদেরকে জামালপুর সদর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। পরে রাত দেড়টার দিকে চালগুলো জব্দ করে কেন্দুয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখ মাহবুবুর রহমান মনজুর জিম্মায় রাখা হয়েছে ।

সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম মাজহারুল ইসলাম বাংলার চিঠি ডটকমকে বলেন, ১৬০ বস্তা ভিজিএফ চাল কালোবাজারে বিক্রির সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Views 78   ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad