এবারের ‘কান’ বিজয়ীদের তালিকা

Kan-fest

বাংলারচিঠি ডটকম ডেস্ক॥
৭১তম কান চলচ্চিত্র উৎসবের শেষদিন ছিল কাল। ৮ মে শুরু হওয়া ১২ দিনব্যাপী এ উৎসবের পুরস্কার ঘোষণার মধ্য দিয়ে শেষদিনের পর্দা নেমেছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ কানের এই আসরটির।

১৯ মে ফ্রান্সের স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সোয়া সাতটায় পালে দো ফেস্টিভ্যাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে বসে কানের সমাপনী এই আসর। এবারের উৎসবে ৭১তম আসরের সর্বোচ্চ পুরস্কার পাম দ’র (স্বর্ণ পাম) জিতলো জাপানের ছবি ‘শপলিফটার্স’।

জাপানের কোরি-ইদা হিরোকাজুর এই ছবিকে দেয়া হলো বিশ্ব সিনেমার সবচেয়ে বড় সম্মান। তার হাতে স্বর্ণ পাম তুলে দেন এবারের আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রধান অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রী কেট ব্ল্যানচেট। এর শুরুতে ৭১তম আসরের বিভিন্ন স্মরণীয় ও উল্লেখযোগ্য মুহূর্ত দেখানো হয়।

এরপর আলোকিত হয় মঞ্চ। বলতে শুরু করেন মাস্টার অব সিরিমনিস এদুয়ার্দ বেয়া। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও ক্যামেরা দ’র বিভাগের পুরস্কার বিতরণীর পর মঞ্চে আসেন মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রধান অস্ট্রেলিয়ান অভিনেত্রী কেট ব্ল্যানচেট। সমাপনী ছবির পরিচালক টেরি গিলিয়ামকে ডাকলে তিনি আসনের ওপর দাঁড়িয়ে সবাইকে হাত নেড়ে শুভেচ্ছা জানান।

দেখে নেওয়া যাক এক নজরে এবারের আসরের পুরো বিজয়ীদের তালিকা:

পাম দ’র: শপলিফটার্স (কোরি-ইদা হিরোকাজু, জাপান)।

কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭১তম আসরে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পুরস্কার গ্রাঁ প্রিঁ পেলেন মার্কিন নির্মাতা স্পাইক লি। ‘ব্ল্যাকক্ল্যান্সম্যান’ ছবি নির্মাণের স্বীকৃতি হিসেবে ৬১ বছর বয়সী এই নির্মাতাকে দেয়া হলো এই সম্মান।

সেরা পরিচালক: পাওয়েল পাউলোকস্কি (কোল্ড ওয়ার, পোল্যান্ড)

সেরা চিত্রনাট্যকার (যৌথভাবে): জাফর পানাহি ও নাদের সায়েভার (থ্রি ফেসেস, ইরান) এবং অ্যালিস রোরওয়াচার (হ্যাপি অ্যাজ লাজ্জারো, ইতালি)

সেরা অভিনেত্রী: সামাল ইয়েসলিয়ামোভা (আইকা, কাজাখস্তান), সেরা অভিনেতা: মার্সেলো ফন্তে (ডগম্যান, ইতালি)

জুরি প্রাইজ: কেপারনম (নাদিন লাবাকি, লেবানন), বিশেষ পাম দ’র: দ্য ইমেজ বুক (জ্যঁ-লুক গদার, ফ্রান্স)

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: অল দিস ক্রিয়েচার্স (চার্লস উইলিয়ামস, অস্ট্রেলিয়া)

স্পেশাল মেনশন (স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি): অন দ্য বর্ডার (ওয়েই শুজুন, চীন)

আঁ সার্তেন রিগার্দ সেরা চলচ্চিত্র: বর্ডার (আলি আব্বাসি, সুইডেন)

সেরা চিত্রনাট্য: সোফিয়া (মরিয়ম বেনেমবারেক, মরক্কো), সেরা অভিনয়: ভিক্টর পলস্টার (গার্ল, বেলজিয়াম)

সেরা পরিচালক: সের্গেই লজনিৎসা (ডনবাস, রাশিয়া), জুরি স্পেশাল প্রাইজ: দ্য ডেড অ্যান্ড দ্য আদারস (জোয়াও সালাভিজা ও রেনে নাদের মেসোরা, ব্রাজিল)

ক্যামেরা দ’র: লুকাস দোন্ত (গার্ল, বেলজিয়াম), সিনেফঁদাসিউ প্রথম পুরস্কার: দ্য সামার অব দ্য ইলেকট্রিক লায়ন (দিয়েগো সেসপেদেস, ইউনিভারসিদাদ দে চিলি)

দ্বিতীয় পুরস্কার: ক্যালেন্ডার (ইগোর পপলোইন, রাশিয়ার মস্কো স্কুল অব নিউ সিনেমা) ও দ্য স্টর্মস ইন আওয়ার ব্লাড (চেন ডাই, চীনের সাংহাই থিয়েটার কোম্পানি)

তৃতীয় পুরস্কার: ইনঅ্যানিমেট (লুসিয়া বুলগেরোনি, যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন স্কুল)।

ফিপরেস্কি প্রতিযোগিতা বিভাগ: বার্নিং (লি চ্যাং-ডং, দক্ষিণ কোরিয়া)

আনসার্তেন রিগার্দ বিভাগ: গার্ল (লুকাস দোন্ত, বেলজিয়াম)

প্যারালাল সেকশন (ক্রিটিকস উইক): ওয়ানডে (সোফিয়া সিলাগি, হাঙ্গেরি)

ইকুমেনিকাল জুরি: কেপারনম (নাদিন লাবাকি, লেবানন)

স্পেশাল মেনশন (ইকুমেনিকাল জুরি): ব্ল্যাকক্ল্যান্সম্যান (স্পাইক লি, যুক্তরাষ্ট্র)

ক্রিটিকস উইক নেসপ্রেসো গ্র্যান্ড প্রাইজ: দিয়ামান্তিনো (পর্তুগাল), সেরা চিত্রনাট্য: ওম্যান অ্যাট ওয়ার (বেনেডিক্ট এরলিংসন, আইসল্যান্ড)

গ্যান ফাউন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড: স্যার (রোহেনা গেরা, ভারত)

লুই রোদোরার ফাউন্ডেশন রাইজিং স্টার অ্যাওয়ার্ড: ফেলিক্স মারিতো (সভেজ, ফ্রান্স)

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র (লেইকা সিনে ডিসকভারি প্রাইজ): হেক্টর মালোত: দ্য লাস্ট ডে অব দ্য ইয়ার (ইয়াকুলিন তিয়েজ্জো, গ্রিস)

ক্যানাল প্লাস অ্যাওয়ার্ড: অ্যা ওয়েডিং ডে (ইলিয়াস বেলকেদার, ফ্রান্স)।
সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ ।