মেলান্দহে বিয়ের একদিন আগে পানিতে ডুবে যুবকের মৃত্যু

সোহেল মিয়া

মুত্তাছিম বিল্লাহ
নিজস্ব প্রতিবেদক, মেলান্দহ, বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের মেলান্দহ উপজেলায় বন্ধুদের সাথে বন্যার পানিতে গোসলে নেমে সোহেল মিয়া (২২) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। ৯ জুলাই মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে উপজেলার দেউলাবাড়ি নইলেরঘাট এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত সোহেল মিয়া উপজেলার বারইপাড়া এলাকার সওকত আলীর ছেলে। ১০ জুলাই বুধবার তার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।

এক সাথে গোসল করতে আসা সোহেলের বন্ধু নাজমুল হাসান বলেন, দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সোহেল ও তাদের কয়েকজন বন্ধু মিলে দেউলাবাড়ি নইলেরঘাট এলাকায় গোসল করার জন্য যায়। সোহেল মিয়া সাঁতার না জানার কারণে বন্যার পানির স্রোতে ভেসে যায়। তাৎক্ষণিক নৌকা দিয়ে সোহেল মিয়াকে উদ্ধার করার জন্য গেলে সে ঘটনাস্থলে ডুবে যায়। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল খবর পেয়ে দুপুর ২টার দিকে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিকেল ৪টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে নিখোঁজ সোহেল মিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে।

বারইপাড়া গ্রামের কামরুল হোসেন বলেন, ১০ জুলাই বুধবার সোহেলের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। আজই (মঙ্গলবার) এ দুর্ঘটনা ঘটলো। ইতোমধ্যে বিয়ের সব প্রস্তুত। বাড়িতে মেহমানদের দাওয়াত দেওয়া হয়েছে।

ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের নেতৃত্ব দেন টিম লিডার মো. শহিদুল হক ও সহায়তা করেন মেলান্দহ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) দিলিপ কুমার।

উদ্ধার কার্যক্রমের পুরো সময় ঘটনাস্থলে থেকে উদ্ধার তৎপরতা বেগবান করেছেন মেলান্দহ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও যুবলীগের সভাপতি ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ। তিনি বলেন, নিখোঁজের পরপরই ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে স্থানীয়দের নিয়ে উদ্ধার কার্যক্রম চালানো হয়েছে। পরে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ঘটনাস্থল থেকে সোহেলের মরদেহ উদ্ধার করে।

মেলান্দহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজু আহাম্মদ জানান, সোহেল মিয়া নামে একজন যুবক বন্ধুদের সাথে বন্যার পানিতে গোসলে নেমে নিখোঁজ হয়েছিল। ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল তার মরদেহ উদ্ধার করেছে। আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।