আন্তঃনগর যমুনা ট্রেনে অগ্নিকাণ্ডে দুই কোটি টাকার ক্ষতি, অজ্ঞাত দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে মামলা

সরিষাবাড়ীতে আন্তঃনগর যমুনা ট্রেনে আগুন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি, বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে আন্তঃনগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনে আগুনের ঘটনায় রেলওয়ে থানায় অজ্ঞাতনামা আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ১৯ নভেম্বর সকালে এ মামলা দায়ের করেন সরিষাবাড়ী রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার আব্দুস সালাম।

সরিষাবাড়ী রেলওয়ের সহকারী স্টেশন মাস্টার আব্দুস সালাম জানান, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা তারাকান্দিগামী যমুনা এক্সপ্রেসে আগুন দেয় নাশকতাকারীরা। এতে ট্রেনের তিনটি বগি পুড়ে প্রায় দুই কোটি টাকার রেলওয়ের সম্পদ নষ্ট হয়ে গেছে।

এ ঘটনায় ১৯ নভেম্বর সকালে তিনি বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে জামালপুর রেলওয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

তিনি আরও জানান, যমুনা এক্সপ্রেসে আগুনের ঘটনায় তারাকান্দি-ঢাকা রেলপথে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকলেও সকাল থেকে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে।

জামালপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলজার হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, আন্ত নগর যমুনা এক্সপ্রেসে আগুনের ঘটনায় রেলওয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তারাকান্দিগামী আন্তঃনগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনটি ১৮ নভেম্বর দিবাগত রাত ১টায় সরিষাবাড়ী স্টেশনে পৌঁছে। এর কিছুক্ষণ পর তারাকান্দি স্টেশনের দিকে ছেড়ে যাওয়ার সময় ট্রেনের ‘খ’ বগিতে আগুনের ধোঁয়া দেখতে পান ট্রেনের যাত্রীরা। এ সময় তারা চিৎকার করতে থাকলে ট্রেনটি থামানো হয়। আগুনে ট্রেনের ক, খ ও গ এই তিনটি বগি পুড়ে যায়।

এ সময় ট্রেন থেকে তড়িঘড়ি করে নামতে গিয়ে চার যাত্রী আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতরা হলেন- উপজেলার আওনা ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের জহির উদ্দিনের স্ত্রী মমতাজ বেগম (৫০), পোগলদিঘা ইউনিয়নের রুদ্র বয়রা গ্রামের আমিনুল ইসলামের স্ত্রী আশিকা সুলতানা (৩০), একই ইউনিয়নের তারাকান্দি এলাকার সোহেল মিয়ার স্ত্রী লাবনী আক্তার (২৪) ও ইয়ার মাহমুদের স্ত্রী জেলী বেগম (৫০)।

sarkar furniture Ad
Green House Ad