নকলায় পুলিশের সহযোগিতায় জুনাকি পরিবারকে ফিরে পেল

হারানো জুনাকিকে পরিবারের হাতে তুলে দিচ্ছেন নকলা থানার ওসি রিয়াদ মাহমুদ ও পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইসকান্দার হাবিব। ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

শফিউল আলম লাভলু, নকলা প্রতিনিধি, বাংলারচিঠিডটকম: শেরপুরের নকলা থানা পুলিশের সহযোগিতায় পরিবারকে ফিরে পেল জুনাকি বিশ্বাস (১২)। জুনাকি নরসিংদীর রায়পুর উপজেলার ধলিনগর এলাকার মৃত সন্তোষ বিশ্বাসের কন্যা। ৯ নভেম্বর রাতে জুনাকিকে আনুষ্ঠানিকভাবে তার ভাই বিশ্ব বিশ্বাসের কাছে বুঝিয়ে দেন থানা পুলিশ।

পুলিশ জানায়, নরসিংদীর রায়পুরার উপজেলার পিরোজকান্দির পিষির বাড়ি থেকে ৭ নভেম্বর নিখোঁজ হয় জুনাকি বিশ্বাস। ৯ নভেম্বর সকাল সাড়ে ১০টার দিকে নকলা থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইসকান্দার হাবিব পৌর শহরের উত্তর বাজার এলাকায় দোকানের পাশে বসে জুনাকিকে কাদঁতে দেখেন। পরে জুনাকিকে কেন কাদঁছে জিজ্ঞাসা করলে সে বলে আমার পরিবারকে হারিয়ে ফেলেছি এবং আমার পরিবারের কাছে ফিরে যেতে চাই। পরে জুনাকিকে থানায় নিয়ে আসেন। পরে রায়পুর থানার সহযোগিতায় জুনাকিকে পরিবারের সাথে যোগাযোগ করে এবং তার বড় ভাইয়ের কাছে বুঝিয়ে দেওয়া হয় জুনাকিকে।

জুনাকি বিশ্বাস বলেন, আমি রেলগাড়ি দিয়ে ভুলে চলে আইছি। আমি মার জন্য কানতেছি। পরে এক পুলিশ আমারে থানায় আনে। অনেক কিছু খাওয়াইছে এবং কইছে তুমি কাইন্দোনা। আমি তোমার মার কাছে তোমাকে দিয়ে আসব। পরে রাইতে হঠাৎ করে দেখি আমার ভাই আমারে ডাকতাছে। পরে ভাইকে দেখে আমার অনেক খুসি লাগছে।

জুনাকির ভাই বিশ্ব বিশ্বাস বলেন, নকলা থানা পুলিশের সহযোগিতায় আজ আমার হারানো বোনকে ফিরে পেলাম। পুলিশ না থাকলে হয়তোবা আমার বোনকে আজ ফিরে পেতাম না। এখনো অনেক ভাল পুলিশ আছে।

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ রিয়াদ মাহমুদ বলেন, আমরা জনগণের পুলিশ হতে চাই। আজ আমরা জুনাকিকে তার পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে পেরে নিজেদেরও অনেক ভাল লাগছে। জনগণের দ্বারপ্রান্তে পুলিশে সেবা পৌছে দেওয়াই আমাদের লক্ষ্য।

sarkar furniture Ad
Green House Ad