ঝিনাইগাতীতে আঘাতপ্রাপ্ত বন্যহাতির মৃতদেহ উদ্ধার

ঝিনাইগাতীর সীমান্তবর্তীর বনাঞ্চলে বন্যহাতির মৃতদেহ। ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

সুজন সেন, নিজস্ব প্রতিবেদক, শেরপুর, বাংলারচিঠিডটকম: শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার সীমান্তবর্তীর বনাঞ্চল থেকে আঘাতপ্রাপ্ত অবস্থায় একটি বন্যহাতির মৃতদেহ উদ্ধার করেছে বন বিভাগ। ২ জুন বিকেলে উপজেলার পর্যটন কেন্দ্র গজনী অবকাশের পাশে ভারত-বাংলাদেশ সীমানার বেরবেরী এলাকা থেকে ওই মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়।

তবে রাত হয়ে যাওয়ায় এবং বন্যহাতির বিচরণের কারণে ৩ জুন সকালে হাতিটির ময়নাতদন্ত করা হবে বলে জানিয়েছে বনবিভাগ।

বন বিভাগ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গজনী অবকাশের বেরবেরী এলাকার শেষ সীমানায় ১১০১ নং সীমান্ত পিলারের কাছে একটি বন্যহাতির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পরে খবর পেয়ে বন বিভাগ, প্রাণিসম্পদ দপ্তরের কর্মকর্তা, বিজিবি ও পুলিশের সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

উদ্ধার হওয়ার সময় মৃত বন্যহাতিটির পেট ফুলা অবস্থায় ছিল এবং শরীর থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছিল। এছাড়া হাতির পিঠে ও মুখে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন লক্ষ্য করা গেছে।

প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তারা ধারণা করছেন, ভারতের মেঘালয় রাজ্য থেকে দেশিয় অস্ত্র বল্লম দিয়ে হাতিটিকে আঘাত করা হয়ে থাকতে পারে। এ অবস্থায় পরে বাংলাদেশে এসে হাতিটি মারা যায়। হাতিটি হয়তো ২-৩ দিন আগেই মারা গেছে বলে ধারণা তাদের।

এ দিকে বন বিভাগের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ৩ জুন হাতিটির ময়নাতদন্ত করা হবে। এরপরই জানা যাবে হাতি মৃত্যুর আসল কারণ।

অন্যদিকে জনসম্মুখে হাতি মৃত্যুর তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ এবং সে অনুযায়ী দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন পরিবেশবাদী সংগঠন সবুজ আন্দোলনের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মেরাজ উদ্দিন।

ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঝিনাইগাতীর রাংটিয়া রেঞ্জের বিট কর্মকর্তা মকরুল ইসলাম আকন্দ।

sarkar furniture Ad
Green House Ad