দেওয়ানগঞ্জে ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিকে যৌথ অভিযান ও জরিমানা

দেওয়ানগঞ্জে ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিকে যৌথ অভিযান ও জরিমানা করেন ইউএনও কামরুন্নাহার শেফা। ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

বিল্লাল হোসেন মন্ডল, দেওয়ানগঞ্জ প্রতিনিধি, বাংলারচিঠিডটকম: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় প্রাইভেট ক্লিনিক এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারে টাস্কফোর্সের যৌথ অভিযান পরিচালিত হয়েছে। অভিযানে ৩ প্রতিষ্ঠানকে ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

এছাড়া বৈধ কাগজপত্র না থাকায় ২টি ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

২৫ মে সন্ধ্যা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কামরুন্নাহার শেফা।

জানা গেছে, দেওয়ানগঞ্জে অবৈধভাবে পরিচালিত ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে টাস্কফোর্সের সাঁড়াশি অভিযান পরিচালিত হয়। পৌরশহরের ৫টি ক্লিনিকে অভিযান চালানো হয়। ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইসেন্সের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় এবং অন্যান্য অভিযোগে রাফি ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ২০ হাজার, বিসমিল্লাহ ক্লিনিককে ৩০ হাজার, বিসমিল্লাহ ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

ক্লিনিকের বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় আধুনিক ও সুরুভী ডায়াগনস্টিক সেন্টারকে সিলগালা করা হয়েছে। নতুন করে লাইসেন্স নবায়ন করে অন্যান্য শর্তসমূহ পূরণ না করা পর্যন্ত এসব বন্ধ থাকবে।

২৬ মে সকালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুন্নাহার শেফা জানান, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত নতুন পরিপত্রের আলোকে গৃহীত সিদ্ধান্ত মোতাবেক এই যৌথ অভিযান পরিচালিত হয়েছে। অভিযানে আমরা বড় ধরনের অসঙ্গতি পেয়েছি, এতদিন কীভাবে এসব ক্লিনিক চলছিল তাতে আমরা বিস্মিত। এতে জনস্বাস্থ্য বিঘ্নিত হয়। এ ধরনের কার্যক্রম করতে দেওয়া হবে না।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আহসান হাবীব, র‌্যাব-১৪ জামালপুর ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়াড্রন লিডার আশিক উজ্জামান, স্কোয়াড কমান্ডার ও সহকারী পুলিশ সুপার এম. এম. সবুজ রানা।

sarkar furniture Ad
Green House Ad