জামালপুরে এপির উদ্যোগে বাড়ির আঙ্গিনায় সবজি বাগান তৈরির প্রশিক্ষণ

জামালপুরে এপির আওতায় বাড়ির আঙ্গিনায় সবজি বাগান তৈরির ওপর প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাংলারচিঠিডটকম: পুষ্টি সচেতনতা বৃদ্ধি এবং অপুষ্টিজনিত কারণে রোগব্যাধির ঝুঁকি নিরসনের লক্ষ্যে উন্নয়ন সংঘের এরিয়া প্রোগ্রাম (এপি) এর উদ্যোগে কর্মএলাকায় পরিবার ভিত্তিক বাড়ির আঙ্গিনায় সঠিক নিয়মে সবজি আবাদের কলাকৌশল শিখানোর উদ্দেশ্যে হতদরিদ্র পরিবারের সদস্যদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।

জামালপুর সদর উপজেলার শরিফপুর ইউনিয়নের বগালী গ্রামে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণে সহায়কের দায়িত্ব পালন করেন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা শেখ মোহাম্মদ শাহানুজ্জামান। বগালী গ্রাম উন্নয়ন কমিটির সভাপতি মো. আব্দুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণে অন্যান্যের মাঝে আলোচনায় অংশ নেন ভিডিসির সহসভাপতি ফরিদা বেগম, উন্নয়ন সংঘের এরিয়া প্রোগ্রামের সিডিও সাব্বির হোসেন রিয়াদ প্রমুখ।

এদিন ২০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এপি কর্মএলাকায় মোট ১৬০ জনকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ পরবর্তী ভূমি তৈরির পর নানা ধরনের শাকসবজির বীজ বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে।

শিশুদের মৌলিক চাহিদা পুরণের জন্যে খানার স্থায়ী আয়ের উৎসে সহযোগিতা, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, ওয়াস, শিশু সুরক্ষা এবং অংশগ্রহণ কার্যক্রমের মাধ্যমে সমাজের অবস্থা উন্নতির লক্ষ্যে জামালপুরে শুরু হয়েছে এরিয়া প্রোগ্রাম (এপি) নামে ১০ বছর মেয়াদী কর্মসূচি। জামালপুরের ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বেসরকারি সংস্থা উন্নয়ন সংঘ এপি বাস্তবায়ন করছে।

প্রশিক্ষণ সূত্র জানায়, উন্নয়ন সংঘ কর্তৃক এরিয়া প্রোগ্রামটি জামালপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীরচর, শরিফপুর ইউনিয়ন এবং জামালপুর পৌরসভার ১, ১০, ১১, ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডে বাস্তবায়ন শুরু হয়েছে। এই কর্মসূচির আওতায় ৩৯টি গ্রামে ২৩ হাজার ২৮২ জন উপকারভোগী নির্বাচন করা হয়েছে। কর্মসূচির সকল কার্যক্রম সফলভাবে সম্পন্ন করতে এলাকার বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ নিয়ে গ্রাম উন্নয়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে। কার্যক্রমের মধ্যে জীবীকায়ন, স্বাস্থ্য, পুষ্টি, ওয়াস এবং স্পন্সরশীপ অন্যতম। এরমধ্যে আবার খানা জরিপ, দক্ষতা উন্নয়ন, পরিবেশ সম্মত গ্রাম প্রতিষ্ঠা, জিঙ্ক ধান উৎপাদন, অতিদারিদ্রের উন্নয়ন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, দল গঠন, সক্ষমতার বিকাশ ঘটানো, প্রসবপূর্ব ও প্রসব পরবর্তী সেবা, শিশু অধিকার বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি, বিপদাপন্ন শিশুর তালিকা তৈরিসহ বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করা হচ্ছে। কর্মসূচি বাস্তবায়নে অর্থায়ন করছে হংকং ।

sarkar furniture Ad
Green House Ad