মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক ❑ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৫১তম বিজয় দিবস উপলক্ষে ১৬ ডিসেম্বর সকালে রাজধানীর উপকণ্ঠে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন।

পুষ্পস্তবক অর্পণের পর তিনি ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের বীর শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, নৌবাহিনী এবং বিমান বাহিনীর একটি সুসজ্জিত চৌকস দল এই সময় রাষ্ট্রীয় সালাম জানায় এবং বিউগলে করুন সুর বাজানো হয়।

পরে দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা দলীয় প্রধান হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে আরেকটি পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ কন্যা এবং প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানাও সেসময় উপস্থিত ছিলেন।

পরে অন্যান্য রাজনৈতিক-সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের পর ৫০ বছর আগে এদিন পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাত থেকে দেশ স্বাধীন হয়েছিল, সে দিনটি স্মরণে জাতি আজ ৫১তম বিজয় দিবস উদযাপন করছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৩০ মানুষের সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ এবং ২ লাখ নারীর সম্ভ্রমের বিনিময়ে ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে জন্ম লাভ করে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী- এই দুটি বৃহৎ অনুষ্ঠানের সাথে মিল রেখে এ বছর বিজয় দিবস উদযাপনে একটি নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে।

দিবসটি উদযাপনে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক-রাজনৈতিক, শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনগুলো নানা কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।
রাষ্ট্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রী সকাল সাড়ে ১০টায় জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে কুচকাওয়াজে উপস্থিত থাকবেন এবং রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ প্রধান অতিথি হিসেবে কুচকাওয়াজ পরিদর্শন করবেন।

বিজয় দিবস উপলক্ষে শেখ হাসিনা গণভবনে স্মারক ডাকটিকিটও অবমুক্ত করবেন।

তিনি সেখানে বাংলাদেশের পর্যটনের ব্র্যান্ড নেম ‘মুজিবের বাংলাদেশ’ লেখা একটি লোগো উন্মোচন করবেন এবং জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী এবং দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করবেন।

বিকেলে প্রধানমন্ত্রী দুটি মহান উদযাপনের অংশ হিসেবে জাতির উদ্দেশে শপথ পাঠ করাবেন।

এছাড়া, তিনি জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও দেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।

sarkar furniture Ad
Green House Ad