মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলে ব্যাপক সৈন্য সমাবেশ, বড় ধরনের মানবাধিকার বিপর্যয়ের আশঙ্কা জাতিসংঘের

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক ❑ জাতিসংঘ ২২ অক্টোবর বলেছে, মিয়ানমার দেশটির উত্তরাঞ্চলে হাজার হাজার সেনা সমাবেশের রিপোর্টে তারা দেশটিতে আরও বড় ধরনের মানবাধিকার বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছে। গত ফেব্রুয়ারিতে অভ্যুত্থানের পর থেকেই সেখানে বিশৃংঙ্খল অবস্থা বিরাজ করছে।

মিয়ানমার বিষয়ক বিশেষ রেপোর্টিয়ার টম অ্যান্ডুস বলেন, “আমাদের সকলের প্রস্তুত থাকা উচিত, যেমন মিয়ানমারের এই অংশের লোকরা আরো বেশি গণহত্যার মুখোমুখি। আমি নিদারুণভাবে আশা করছি আমার এই আশঙ্কা ভুল প্রমাণিত হোক।”

স্থানীয় পর্যবেক্ষক গ্রুপের হিসাবে দেশটিতে জান্তা বিরোধীদের ওপর চালানো রক্তক্ষয়ী অভিযানে ১,১০০ বেশী বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন, জান্তা বিরোধী বিক্ষোভের শুরু থেকে এ পর্যন্ত ৮,০০০ হাজারের বেশী লোককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জাতিসংঘে বার্ষিক মানবাধিকার রিপোর্ট উপস্থাপনকালে অ্যান্ডুস বলেন, তিনি তথ্য পেয়েছেন যে মিয়ানমার দেশটির দুর্গম উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে হাজার হাজার সৈন্য এবং ভারী অস্ত্র মোতায়েন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, তথ্যগুলো ইঙ্গিত দেয় যে, সামরিক জান্তা মানবতার বিরুদ্ধে সম্ভাব্য অপরাধ এবং যুদ্ধাপরাধের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

সামরিক জান্তার এ ধরনের কৌশলগুলো আগে ২০১৬ এবং ২০১৭ সালে রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গণহত্যার কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। এই অভিযানে ৭ লাখ ৪০ হাজার রোহিঙ্গা রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয়। জাতিসংঘ বলেছে এই অভিযানে বিপুল মানুষ গণহত্যার শিকার হয়েছে।

রাখাইন রাজ্যে গণহত্যার আগে যেভাবে সামরিক সমাবেশ করা হয়েছে, এবার দেশটির উত্তরাঞ্চলে একইভাবে সামরিক সমাবেশ ঘটানো হচ্ছে।

সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad