জামালপুরে ন্যায্যমূল্যে বেকারিপণ্যের কাঁচামাল বিক্রির দাবিতে স্মারকলিপি

জামালপুরে বেকারি শিল্প মালিক সমিতির স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান। ছবি: বাংলারচিঠিডটকম

মাহমুদুল হাসান মুক্তা, জামালপুর প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

করোনা পরিস্থিতিতে টিসিবির মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে বেকারিপণ্যের কাঁচামাল বিক্রির ব্যবস্থা করে ব্যবসায়ীদের ক্ষতি পুষিয়ে উঠার সুযোগ দেওয়ার দাবিতে স্মারকলিপি দিয়েছেন জামালপুর জেলা বেকারি শিল্প মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দ। ৬ ডিসেম্বর দুপুরে জেলা প্রশাসক বরাবরে লেখা তাদের স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান।

স্মারকলিপির মাধ্যমে জেলা বেকারি মালিক শিল্প সমিতির নেতৃবৃন্দ বলেছেন, চলমান করোনা ভাইরাসের প্রভাবে জামালপুর জেলায় ১০৮টি বেকারিপণ্য উৎপাদন প্রতিষ্ঠান প্রায় তিনমাস বন্ধ থাকে। কারখানা বন্ধ থাকাকালীন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দপ্তরে বেকারি শ্রমিক-কর্মচারীদের তালিকা জমা দিয়েও কোনো প্রকার সরকারি প্রণোদনা বা বেসরকারি সহযোগিতা পাওয়া যায়নি। এতে করে শ্রমিক-কর্মচারীদের বাঁচিয়ে রাখতে ও ব্যবসায়ী মন্দার কারণে বেকারি মালিকরা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

তারা আরো বলেছেন, গত দুই মাস ধরে বেকারি শিল্পে ব্যবহৃত ময়দা, চিনি, তেল, ডালসহ অন্যান্য কাঁচামালের মূল্য অস্বাভাবিক দাম বেড়েছে। এতে করে প্রতিমাসে প্রায় সোয়া লাখ টাকার মতো অতিরিক্ত খরচ বহন করে সিংহভাগই লোকসান গুণতে হচ্ছে। অব্যাহত লোকসানের কারণে বেকারি শিল্প বন্ধ হয়ে মালিক, শ্রমিক, বিক্রয় প্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীরা কর্মহীন হয়ে পড়ার শঙ্কা রয়েছে। এই পরিস্থিতিতে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বেকারি শিল্পে ব্যবহৃত কাঁচামালের ন্যায্যমূল্য নির্ধারণসহ টিসিবির মাধ্যমে কাঁচামাল ক্রয়ের সুযোগ দেওয়া জরুরি হয়ে পড়েছে। অন্যথায় অনির্দিষ্টকালের জন্য বেকারি শিল্পের উৎপাদন বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবেন বলেও তারা স্মারকলিপিতে উল্লেখ করেছন।

স্মারকলিপি পেশ করার সময় জামালপুর জেলা বেকারি শিল্প মালিক সমিতির সভাপতি এনামুল হক খান মিলন, সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল হালিম, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রবিউল আওয়াল, সদর উপজেলা শাখার সভাপতি মো. মোশাররফ হোসেন, মেলান্দহ উপজেলা শাখার সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান স্বপন, মাদারগঞ্জ শাখার সভাপতি আবু বক্কর, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহাম্মেদ, সরিষাবাড়ী শাখার সভাপতি মো. সুমন মিয়া ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা শাখা সমিতির সভাপতি মো. বাবলা মিয়া উপস্থিত ছিলেন।

sarkar furniture Ad
Green House Ad