বর্ধিতসভাকে কেন্দ্র করে সরিষাবাড়ীতে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ২৫

বর্ধিতসভাকে কেন্দ্র করে সরিষাবাড়ীতে আওয়ামী লীগের দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা ও রাজনৈতিক আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, হামলা ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষে অন্তত ২৫ জন দলীয় নেতাকর্মী আহত হয়। ১০ অক্টোবর বেলা ১২টার দিকে উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের পারপাড়া গ্রামের সরিষাবাড়ী-ভাটারা-জামালপুর প্রধান সড়কে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের ভাটারা স্কুল অ্যান্ড কলেজের সভা কক্ষে ১০ অক্টোবর সকাল ১১টায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন শুরু হয়। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে জমায়াত হতে থাকে। অনুষ্ঠান শুরুর দিকেই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন বাদলের পক্ষের রমজান আলী ও বুলবুল মিয়ার নেতৃত্বে একটি মিছিল সভার দিকে যাচ্ছিল। একই সময় ইউপি সদস্য ও আওয়ামী লীগ নেতা সুলতান মাহমুদের সমর্থকরাও মিছিল নিয়ে সভাস্থলে যাচ্ছিল। এ সময় দু’টি মিছিল পাশাপাশি অতিক্রম করার সময় হঠাৎ দু’পক্ষের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষ লাঠিসোটা, দেশীয় অস্ত্র নিয়ে পাল্টাপাল্টি হামলা ও সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

সংঘর্ষে হাফিজুর, আফজাল, হাফেজ, রতন, জহুরুল, শফিকুল, মজিবর, কেসমত, মন্টিু, বাবুল, জাকের, ঈসমাইল, নজরুল, সুলতান, সুজা মিয়া, হালিম, সামাদ, বুলবুল, রমজান, আলম, মোখলেছুর, আনোয়ার, ফরহাদসহ উভয়পক্ষে অন্ততঃ ২৫ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে গুরুতর রমজান আলী ও বুলবুল মিয়াকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এবং অন্যদের জামালপুর জেনারেল হাসপাতাল ও স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

ঘটনা নিয়ন্ত্রণে ভাটারা পারপাড়া মোড়ে পুলিশ মোতায়েন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

অপরদিকে একই ঘটনার জের ধরে ভাটারা বাজার রেল ক্রসিং এলাকায় পৃথক দু’পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে পুলিশ। তবে ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েনের মধদিয়ে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়।

এব্যাপারে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন বাদল জানান, নেতাকর্মীরা বর্ধিত সভায় মিছিল নিয়ে আসার পথে বিএনপি থেকে আসা অনুপ্রবেশকারী নামধারী আওয়ামী লীগ নেতা ইউপি সদস্য সুলতাল মাহমুদের নেতৃত্বে হামলার ঘটনা ঘটে।

ইউপি সদস্য সুলতাল মাহমুদ জানান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন বাদল ওয়ার্ডের পকেট কমিটি করেছে নিজের লোকজন দিয়ে। আমি আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী। এর জের ধরে বোরহান উদ্দিন বাদলের লোকজন আমার সর্মথকদের মিছিলের উপর হামলা করেছে।

সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু মোহাম্মদ ফজলুল করিম এ প্রতিবেদককে জানান, ভাটারা স্কুল এন্ড কলেজ মাঠে ইউনিয়ন আ’লীগের বর্ধিত সভায় একটি মিছিল যাচ্ছিল। এ সময় মিছিলের ওপর পিছন থেকে কেবা কারা ঢেল ছুড়ে দিলে হট্রগোল বেজে যায়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

sarkar furniture Ad
Green House Ad