সরিষাবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের কার্যক্রম স্থবির

সরিষাবাড়ী (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় দীর্ঘদিন ধরে মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি দিয়ে চলে আসছে ছাত্রলীগের দলীয় কার্যক্রম। এতে সাংগঠনিক কার্যক্রম ভেঙে পড়েছে। পদ পেতে সম্ভাব্য নেতা কর্মীরা তৎপরতা শুরু করলেও কমিটি গঠনের উদ্যোগ নেই। এতে কর্মী সমর্থকদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে। যার ফলে কমিটির পদপদবিধারীদের মধ্যে অধিকাংশ নেতাকর্মীরা রাজনীতি ছেড়ে কর্মজীবনের হিসাব নিকাশ করতে শুরু করেছে।

দলীয় সূত্রে জানা যায়, সরিষাবাড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ২০১৭ সালে ১৬ এপ্রিল আল-আমীন হোসাইন শিবলু সভাপতি ও আল মামুনকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছর মেয়াদী একটি কমিটি গঠন করা হয়। এক বছর মেয়াদি কমিটি হলেও চলে আসছিল নামমাত্র দলের কার্যক্রম। এদিকে ২০১৯ সালে ২১ এপ্রিল দলীয় নিয়ম শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল-আমীন হোসাইন শিবলুকে সভাপতি পদে থেকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করে জেলা ছাত্রলীগ। এ সাময়িক বহিষ্কার করার পর দীর্ঘদিন গত হলেও তার বিরুদ্ধে স্থায়ীভাবে সিদ্ধান্ত নেয়নি দলটি। উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাময়িক বহিষ্কার থাকায় বেস্তে গেছে সাংগঠনিক তৎপরতা। এর ফলে ইউনিয়ন পর্যায়ে ছাত্রলীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটিগুলো পুনঃগঠন না হওয়ায় দলীয় ঐক্য ভেঙে পড়েছে। দীর্ঘদিনেও উপজেলা ও ইউনিয়নগুলোর নতুন কমিটি গঠন না হওয়ায় ছাত্রলীগের কার্যক্রম সম্পূর্ণরূপে স্থবির হয়ে পড়েছে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হুমায়ূন কবীর শিপন জানান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আল আমীন হোসাইন শিবলুর সাময়িক বহিষ্কারের পর থেকে সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়েছে। এরপর থেকে সংগঠনিক কার্যক্রম থেকে সরে এসেছি। বিয়ে ও কর্মজীবনে প্রবেশ করে ব্যবসা বাণিজ্য করছেন তিনি।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন জানান, সংগঠনের সভাপতিকে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করেছে জেলা ছাত্রলীগ। তাছাড়া কমিটির মেয়াদও উত্তীর্ণ। আমি সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সংগঠনের দায়িত্ব পালনে চেষ্টা চালিয়ে আসছি।

জামালপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নিহাদুল আলম নিহাদ জানান, সভাপতি না থাকায় দলীয় কার্যক্রম কিছুটা ভাটা পড়তেই পারে। সাংগঠনিক কার্যক্রম গতিশীল করতে যেখানে নতুন কমিটি প্রয়োজন তার প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে।

Views 179 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad