ইসলামপুরে শুকনা খাবারের প্রত্যাশায় বন্যার্তরা

লিয়াকত হোসাইন লায়ন, ইসলামপুর (জামালপুর) প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলায় তৃতীয় দফায় ফের বন্যার পানি বৃদ্ধি পেলেও আবারও কমছে পানি। বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে যমুনা নদীর পানি ২০ জুলাই বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৮৭ সেন্টিমিটার উপরে দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। উজানের ঢলের পানি এবং টানা বর্ষণে সৃষ্টি বন্যায় উপজেলার ১২টি ইউনিয়নের ও পৌরসভার কমপক্ষে তিন লাখ মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

বন্যার পানিতে হাট-বাজার বন্যার পানিতে যাওয়ায় দুর্ভোগ ও খাদ্যের প্রয়োজনীয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে।

চিনাডুলী ইউনিয়নে বামনা সড়কসহ বিভিন্ন আশ্রয়ণ কেন্দ্রের আশ্রিত পরিবারগুলো বন্দি জীবন যাপন করছে। তারা চালের পরিবর্তে প্রতিনিয়তই শুকনো খাবারের দাবি জানিয়েছে। এছাড়াও উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও পৌরসভার চাড়িয়া ফকিরপাড়া গ্রামে পানিবন্দি মানুষগুলো দীর্ঘদিন থেকে স্থায়ী বন্যায় দুর্ভোগে পড়েছে। শুকনো খাবার বিশুদ্ধ পানির পাশাপাশি গোখাদ্যের দাবি জানিয়েছে। বন্যার্তরা জানান চাল পেলে কি হবে উনুন জ্বালানোর মত জায়গা না থাকায় সমস্যা প্রতি নিয়তই ভোগ করতে হচ্ছে।

সংসদ সদস্য ফরিদুল হক খান দুলাল জানান, বন্যা কবলিত মানুষের জন্য আমাদের ত্রানসামগ্রী ও শুকনো খাবার বিতরণ কার্যক্রম অব্যহত রেখেছি। প্রতি নিয়তই আমি নিজে বিভিন্ন এলাকায় ত্রাণ বিতরণ করছি। দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বন্যা কবলিত মানুষের পাশে আছি।

Views 41 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad