সানন্দবাড়ীতে জব্দ করা চাল পেল গরিব মানুষেরা

গরিবদের চাল বিতরণ করেন তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. হাবিবুর রহমান। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

বিল্লাল হোসেন মন্ডল, দেওয়ানগঞ্জ প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির জব্দ করা ২৬ বস্তা চাল গরিবদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। ৬ জুন সকালে উপজেলার সানন্দবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র থেকে চালগুলো বিতরণ করা হয়।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সানন্দবাড়ী তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে গত ১৮ মার্চ ডাংধরা ইউনিয়নের কাউনিয়ার চর এলাকায় স্থানীয় কামরুল ইসলামের রাইস মিল থেকে ২৬ বস্তায় এক হাজার ৩০০ কেজি চাল জব্দ করা হয়। চালগুলো ছিল গরিবদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে বিক্রির সরকারি খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির চাল। এতদিন জব্দ করা চালের বস্তাগুলো সানন্দবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের হেফাজতে ছিল। গরীবদের জন্য বরাদ্দের সরকারি চাল কালোবাজারে মজুদ রাখার অভিযোগে ডাংধরা ইউনিয়নের পান্তামারী গ্রামের জোরান আলীর ছেলে বাদল মিয়াকে (৩৫) আসামি করে দেওয়ানগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলা দায়েরের পর থেকে আসামি বাদল মিয়া পলাতক রয়েছেন।

একদিকে জব্দ করা চালগুলো গরিব মানুষদের জন্য বরাদ্দের চাল, অন্যদিকে চলমান করোনা সঙ্কটের সময়ে গরীব মানুষদের কষ্ট বিবেচনায় সম্প্রতি আদালত থেকে ওই চালগুলো গরিবদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের আদেশ জারি করা হয়। আদালতের আদেশের প্রেক্ষিতেই ৬ জুন সকালে সানন্দবাড়ী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে চালগুলো স্থানীয় ১৩০টি গরিব পরিবারের সদস্যদের মাঝে বিতরণ করেন তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মো. হাবিবুর রহমান। প্রতিজনকে ১০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়েছে।

দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এম ময়নুল ইসলাম বলেন, জব্দ করা ২৬ বস্তা সরকারি চাল আড়াই মাসের অধিক সময় ধরে আমাদের হেফাজতে ছিল। চালগুলো গরিব মানুষদেরই প্রাপ্য ছিল। চলমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় আদালতের নির্দেশে চালগুলো স্থানীয় ১৩০ জন গরিব পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে।

Views 32 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad