বকশীগঞ্জে ৩১০০ পরিবারে ব্যারিস্টার ছামিরের আর্থিক সহযোগিতা

ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার

বকশীগঞ্জ প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

করোনাভাইরাসের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া অসহায়, দুঃস্থ ও কর্মহীনদের পাশে দাঁড়িয়েছেন বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার। বরাবরের মত যেকোন দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকাই যেন তার চরিত্রের বৈশিষ্ট্য। কোন দুর্যোগ বা মানুষের বিপদ হলে তিনি সব সময় সহযোগিতার হাত বাড়ান। এবার করোনা দুর্যোগকালেও ৩ হাজার ১০০ পরিবারকে আর্থিক সহায় দিয়েছেন তিনি।

জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার ধুমালীপাড়া গ্রামের সাবেক মন্ত্রী এম এ ছাত্তারের একমাত্র ছেলে ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্টের একজন আইনজীবী হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের লিগ্যাল এডভাইজার হিসেবেও কাজ করছেন।

গত মার্চ থেকে সারাবিশ্বে মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিলে মানবিক বিপর্যয় দেখা দেয়। বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়ে। যার ফলে সরকার সারাদেশে লকডাউন ঘোষণা করলে কর্মজীবী মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ে। বিশেষ করে খেটে মানুষগুলো আরও বিপাকে পড়ে যান। যদিও সরকার এসব মানুষকে প্রশাসনের মাধ্যমে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন। তবুও ঘরে বসে থাকেননি ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার।

এলাকার মানুষের দুরাবস্থার কথা চিন্তা করে তাদেরকে সহযোগিতার উদ্দেশ্যে পাশে দাঁড়ান। তিনি করোনার কারণে এলাকায় না আসলেও সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর নিয়েছেন বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার মানুষের। একই সাথে তিনি তার সামর্থ দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ান। তিনি প্রতিটি ইউনিয়নের প্রান্তিক অসহায় ১০০ পরিবারকে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। শুধু তাই নয় রিকশা চালক, ভ্যান চালক, সিএনজি চালক, প্রতিবন্ধী, হাতির আক্রমণে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের আর্থিক সহযোগিতা প্রদান, হাতির আক্রমণে নিহত পরিবারকে সহযোগিতা, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, পরিবহন শ্রমিকদের আর্থিক সহযোগিতা দেন। সব মিলিয়ে করোনা দুর্যোগে তিনি বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় ৩ হাজার ১০০ পরিবারকে সহযোগিতা করেছেন।

গত এপ্রিল থেকে ২৪ মে পর্যন্ত সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পৌরসভাসহ বিভিন্ন ইউনিয়নে এসব অর্থ সহায়তা দেওয়া হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম বিজয় ও বিভিন্ন ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ অর্থ বিতরণকালে অংশ নেন।

এছাড়াও ব্যারিস্টার ছামির সাত্তারের পক্ষ থেকে মানুষকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সচেতনতা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। মানুষকে সচেতন করার জন্য সরকারের দেওয়া বিভিন্ন সিদ্ধান্ত মানুষকে জানিয়ে দেওয়া হয়।

ব্যারিস্টার ছামির সাত্তারের পক্ষে তার প্রতিনিধি ব্যবসায়ী খোকন আকন্দ এই কার্যক্রমগুলো সম্পন্ন করেন। করোনা দুর্যোগের সময় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগতার হাত বাড়ানোয় প্রশংসায় ভাসছেন ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার। অনেকেই বলেন এই দুর্যোগে ব্যারিস্টার ছামির মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সঠিক কাজটিই করেছেন। তার এসব কর্মকাণ্ড মানুষ মনে রাখবে। সব মিলিয়ে তিনি বকশীগঞ্জ ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় প্রশংসায় ভাসছেন। কারণ বন্যা, প্রাকৃতিক দুর্যোগ সহ সব ধরণের দুর্যোগে তিনি মানুষের পাশে দাঁড়ান। ভবিষ্যতেও ব্যারিস্টার ছামির সাত্তার তার কর্মযজ্ঞ দিয়ে মানুষের পাশে থাকবেন এবং মানুষের হৃদয়ের মনিকোঠায় স্থান করবেন এমনটাই প্রত্যাশা মানুষের।

Views 42 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad