কৃষকের মিষ্টি লাউ কিনে দরিদ্রদের মাঝে বিতরণ করছে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগ

কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবীরের হাতে তার মিষ্টি লাউয়ের মূল্য তুলে দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

আলী আকবর, নিজস্ব প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

করোনাভাইরাসের প্রভাবে কৃষকের উৎপাদিত সবজি বিক্রি করতে না পেরে ক্ষেতেই যাতে সবজি নষ্ট না হয়, এই পরিস্থিতি থেকে কৃষকদের বাঁচাতে তাদের উৎপাদিত মিষ্টিলাউসহ সব সবজি ক্রয় করে অসহায় দরিদ্র পরিবারের মাঝে ত্রাণের সাথে সবজি বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগ।

জামালপুর সদর উপজেলার শাহবাজপুর ইউনিয়নের কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবীরের সাত একর জমিতে উৎপাদিত মিষ্টিলাউ বাজারমূল্যে ক্রয় করেছেন জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী। তিনি ১৭ মে বিকেলে জামালপুর সিংহজানী খাদ্য গুদাম প্রাঙ্গণে সেই লাউ ত্রাণ হিসেবে অসহায় দরিদ্রদের বিতরণ করে সবজি বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

এ সময় জামালপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াছমিন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. সুরুজ্জামান, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক আওলাদ হোসেন খসরু, জামালপুর সিংহজানী খাদ্য গুদামের সংরক্ষণ ও চলাচল কর্মকর্তা মো. আসাদুজ্জামান খান উপস্থিত ছিলেন।

সিংহজানী খাদ্যগুদাম প্রাঙ্গণে দরিদ্র এক ব্যক্তির মাঝে মিষ্টি লাউ বিতরণ করেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদা ইয়াছমিন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

এ প্রসঙ্গে জামালপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফরিদা ইয়াছমিন বলেন, চলমান করোনাভাইরাসের প্রভাবে অনেক কৃষকই ন্যায্যমূল্যে তাদের সবজি ও অন্যান্য কৃষিপণ্য বিক্রি করতে পারছেন না। তেমনই একজন কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবির তার সমস্যার কথা জানিয়ে উপজেলা প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেন। পরে জেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ওই কৃষকের সবজি কিনে তার পাশে দাঁড়ালেন। তার মিষ্টি লাউ পর্যায়ক্রমে অসহায় ও দুঃস্থদের মাঝে ত্রাণ সহায়তা হিসেবে বিতরণ করা হবে।’ জেলা আওয়ামী লীগের এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানান ইউএনও।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহাম্মেদ চৌধুরী বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে উৎপাদিত কৃষিপণ্যের বাজারমূল্য নিশ্চিত করে কৃষকের হাতে টাকা তুলে দেওয়ার জন্যই সবজি বিতরণের এমন উদ্যোগ নিয়েছি। এছাড়াও জেলা আওয়ামী লীগ ইতিমধ্যে এক লাখ দরিদ্র পরিবারকে খাদ্য সহায়তা এবং ৬৮ লাখ টাকা নগদ অর্থ সহায়তা দিয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে শাহবাজপুরের কৃষক হাফেজ মো. হুমায়ুন কবির পরিবহন সংকটের কারণে তার ক্ষেতের মিষ্টি লাউ বিক্রি করতে সমস্যায় পড়েন। তাই কৃষক হুমায়ূন কবিরকে ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করতে এবং দুঃস্থদের সহায়তার জন্য এই কার্যক্রম হাতে নেয় জেলা আওয়ামী লীগ। উপজেলা প্রশাসনের সাথে সমন্বয় করে ত্রাণের সাথে সহায়তা হিসেবে মিষ্টি লাউ বিতরণ অব্যাহত থাকবে।

Views 51 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad