জামালপুরে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন ৪০ করোনাযোদ্ধা, নতুন আক্রান্ত ১

করোনাযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুর সদর উপজেলায় নতুন করে একজন নারী স্বাস্থ্য সহকারী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। ৮ মে নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে তার করোনা পজেটিভ আসে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাড়াল ১০৪ জন। অপরদিকে একই দিনে ৪০ জন করোনাযোদ্ধা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেলেন ৪৯ জন করোনাযোদ্ধা। জেলার সিভিল সার্জন কার্যালয় এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জামালপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্র জানায়, ময়মনসিংহের করোনা পিসিআর ল্যাব থেকে ৮ মে পাওয়া নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে একজন নারীর করোনা পজেটিভ আসে। তার বয়স ৪২ বছর। তিনি ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সহকারী। তার গ্রামের বাড়ি ইসলামপুরের উলিয়া এলাকায় হলেও তিনি জামালপুর শহরের নয়াপাড়া এলাকায় নিজ বাসায় বসবাস করেন।

জামালপুর সদরের ইউএইচএফপিও ডা. মো. লুৎফর রহমান এ প্রতিবেদককে জানান, নতুন করে আক্রান্ত ওই নারী স্বাস্থ্য সহকারীর দেহে করোনার উপসর্গ গুরুতর না হওয়ায় তাকে শহরের নয়াপাড়ায় তার বাসায় আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

সূত্রটি আরো জানায়, গত ৬ এপ্রিল মেলান্দহের ঘোষেরপাড়ায় প্রথম এক যুবকের করোনা পজেটিভ শনাক্ত হওয়ার পর থেকে জেলার সাতটি উপজেলায় ধীরগতিতে হলেও করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। ৮ মে নতুন করে শনাক্ত একজন নারীসহ গত এক মাসে এ পর্যন্ত জেলায় ১০৪ জন করোনার রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে সদরের করোনা আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি এবং হোম আইসোলেশনে থাকা করোনার রোগীদের মধ্যে আজ শুক্রবার এক সাথে ৪০ জনকে সুস্থতার সনদ দেওয়া হয়েছে। তারা আজ বিকেলে সবাই হাসিমুখে বাড়ি ফিরে গেছেন। তাদের মধ্যে ছয়জন চিকিৎসকসহ ১৩ জন স্বাস্থ্যকর্মী এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও এসআইসহ তিনজন পুলিশ সদস্য রয়েছেন। এর আগে প্রথম শনাক্ত হওয়া ওই যুবকসহ আরো নয়জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট ৪৯ জন করোনাযোদ্ধা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেলেন। তাদের মধ্যে ছয়জন নারী রয়েছেন।

৮ মে বিকেলে জামালপুরের মনিরাজপুরে নির্মাণাধীন শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল প্রকল্প এলাকায় সুস্থ হওয়া করোনাযোদ্ধাদের ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা ও করতালির মাধ্যমে তাদেরকে স্বাগত জানান সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. মোকলেছুর রহমান, সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. কে এম শফিকুজ্জামান, শেখ হাসিনা মেডিক্যাল কলেজের প্রকল্প পরিচালক ডা. মোশায়ের উল ইসলাম রতন, জামালপুর সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সহকারী পরিচালক ডা. মুহা. মাহফুজুর রহমান সোহান, সদরের ইউএইচএফপিও ডা. মো. লুৎফর রহমান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ছানোয়ার হোসেন প্রমুখ।

সিভিল সার্জন ডা. প্রণয় কান্তি দাস এ প্রতিবেদককে জানান, ৮ মে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়া ব্যক্তিদের বাড়িতে গিয়েও চৌদ্দদিন কোয়ারেন্টিনে থাকাসহ তাদের সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।৪৯ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে যাওয়ার পর বর্তমানে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশনে ২০ জন এবং হোম আইসোলেশনে থাকা ৩৫ জন করোনার রোগীকে চিকিৎসাসেবাসহ তাদেরকে নিয়মিত পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের শারীরিক অবস্থা মোটামুটি ভালো রয়েছে বলেও তিনি জানান।

Views 36 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad