অধ্যক্ষ ছালাম চৌধুরীর অপরসারণ দাবিতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

গণস্বাক্ষর কর্মসূচিতে সামাজিক অবক্ষয় প্রতিরোধ কমিটির নেতৃবৃন্দ। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

লিয়াকত হোসাইন লায়ন, ইসলামপুর প্রতিনিধি
বাংলারচিঠিডটকম

আন্ত:নগর তিস্তা এক্সপ্রেস ট্রেনের কেবিনের কামরায় প্রাক্তন এক ছাত্রীর সাথে অসামাজিক কার্যকলাপের ঘটনার প্রতিবাদে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার জে জে কে এম গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুছ ছালাম চৌধুরীর অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে এবার গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

৬ ফেব্রুয়ারি ইসলামপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ প্রাঙ্গণে ‘সামাজিক অবক্ষয় প্রতিরোধ কমিটি’ এ গণস্বাক্ষর কর্মসূচির আয়োজন করে। দিনব্যাপী আয়োজিত এ কর্মসূচিতে স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার মানুষ অধ্যক্ষ আব্দুছ ছালাম চৌধুরীর অপসারণ ও শাস্তির দাবিতে স্বাক্ষর করেন।

সামাজিক অবক্ষয় প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে এ সময় জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি মোজাহারুল হক, উপজেলা আওয়ামী যুব মহিলালীগের সভাপতি আবিদা সুলতানা যুথী, প্রভাষক খলিলুর রহমান, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফারুক ইকবাল হিরো, জিয়াউল হক জুয়েল, জে জে কে এম গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজের প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক,অভিভাবকসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২ ফেব্রুয়ারি দুপুরে জামালপুর থেকে দেওয়ানগঞ্জগামী আন্ত:নগর তিস্তা ট্রেনের বেশ কয়েকজন যাত্রীদের অভিযোগের ভিত্তিতে ট্রেনটির কেবিনের একটি কামরায় অধ্যক্ষ আব্দুছ ছালাম চৌধুরী ও একই কলেজের প্রাক্তন এক ছাত্রীকে অসামাজিক কার্যকলাপরত অবস্থায় হাতেনাতে আটক করে রেলওয়ে পুলিশ। পরে গভীর রাতে রহস্যজনক কারণে জামালপুর রেলওয়ে থানা পুলিশ অধ্যক্ষ ও ছাত্রীকে ছেড়ে দেয়। এ ঘটনার পর থেকে ওই অধ্যক্ষের চাকরি থেকে অপসারণসহ তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে ইসলামপুরে বেশ তোলপাড় চলছে। গোটা ইসলামপুরবাসী অধ্যক্ষ আব্দুছ ছালাম চৌধুরীকে সামাজিকভাবে বয়কট করে তাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে।

sarkar furniture Ad
Green House Ad