আন্ত:নগর ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবিতে নরুন্দিতে মানববন্ধন

নরুন্দি রেলস্টেশনে তিনটি আন্ত:নগর এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবিতে মানববন্ধন করে স্থানীয়রা। ছবি : এম আলমগীর

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

ঢাকা-জামালপুর রুটের নরুন্দি রেলস্টেশনে তিনটি আন্ত:নগর এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির দাবিতে মানববন্ধন ও রেলপথ অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে স্থানীয় রেলযাত্রীরা। ২৯ জানুয়ারি বেলা ১১টা থেকে দুপুর দু’টা পর্যন্ত প্রায় তিন ঘণ্টা সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে নরুন্দি রেলস্টেশনে এ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। এতে করে দু’টি ট্রেন আটকা পড়াসহ এই রুটে প্রায় তিন ঘন্টা ট্রেন চলাচল বিঘ্নিত হয়।

জানা গেছে, ঢাকা-জামালপুর রুটের নরুন্দি রেলস্টেশনে আন্ত:নগর ব্রহ্মপুত্র, অগ্নিবীণী ও যমুনা এক্সপ্রেস এই তিনটি ট্রেনের যাত্রা বিরতির জন্য দীর্ঘ দিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছে স্থানীয়রা। নরুন্দি ইউনিয়ন ছাড়াও আশপাশের আরো কয়েকটি ইউনিয়নের বিভিন্ন স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক থেকে শুরু করে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার তিন হাজারেরও অধিক সাধারণ মানুষ মানববন্ধনে অংশ নেন। মানববন্ধনটি একপর্যায়ে রেলপথ অবরোধে রূপ নেয়। ফলে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্ত:নগর তিস্তা এক্সপ্রেস পিয়ারপুর রেলস্টেশনে এবং কমিউটার-২ ট্রেন নরুন্দি রেলস্টেশনে প্রায় তিন ঘন্টা আটকা পড়ে। এতে করে ট্রেন দুটির যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

এদিকে রেলপথ অবরোধ আন্দোলনের খবর পেয়ে জামালপুর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান বেলা দেড়টার দিকে নরুন্দি রেলস্টেশনে পৌঁছে আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন। তিনি রেলওয়ের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে আলোচনা করে আগামী পনের দিনের মধ্যে আন্ত:নগর ট্রেন তিনটির যাত্রা বিরতির ব্যবস্থার আশ্বাস দিলে আন্দোলনকারীরা তাদের কর্মসূচি স্থগিত করেন। পরে বেলা দু’টার দিকে জামালপুর-ঢাকা রুটে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়।

আন্ত:নগর ট্রেনের যাত্রা বিরতির আশ্বাস দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মোকলেছুর রহমান। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নরুন্দি স্কুল এন্ড কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি মো. শামছুল আলম বাবুল ও অধ্যক্ষ কাজী মনজুর মোর্শেদ, নরুন্দি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. নাজমুল হক, তুলসীরচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. সোলায়মান হক, নরুন্দি ইউনিয়ন যুবলীগনেতা মো. মোজাম্মেল হক ও মো. আক্তারুজ্জামান প্রমুখ।

তারা জেলা প্রশাসনের আশ্বাস অনুযায়ী আগামী পনের দিনের মধ্যে তিনটি আন্ত:নগর এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতির বিষয়টি নিশ্চিত না করা হলে পরবর্তীতে ফের আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে বক্তারা ঘোষণা দেন। একই সাথে তারা নরুন্দি রেলস্টেশনে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ ও আধুনিকায়নের দাবি জানান তারা।

sarkar furniture Ad
Green House Ad