জামালপুরে রক্তের বন্ধনের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত

আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মুজাহিদ বিল্লাহ ফারুকী। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠিডটকম

বিগত নয় বছরে দশ হাজার ব্যাগের অধিক বিনামূল্যে ও স্বেচ্ছায় রক্তদান করেছে জামালপুরের স্বেচ্ছাসেবী রক্তদান সংগঠন রক্তের বন্ধন। সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের একঝাঁক উদ্যমী তরুণ নয় বছর আগে গঠন করে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রক্তের বন্ধন। গুটিগুটি পায়ে সংগঠনটি নানান চড়াই-উৎরাই, বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে নয়টি বছর পার করেছে। জামালপুরে শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভার মধ্যদিয়ে এই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন রক্তের বন্ধনের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

২৮ জানুয়ারি দুপুরে সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শহরের বকুলতলা চত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য শোভযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রায় জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারহান আহমেদ, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও রক্তের বন্ধনের সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন। শোভাযাত্রাটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজ মিলনায়তনে গিয়ে শেষ হয়।

রক্তের বন্ধনের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

পরে সেখানে সংগঠনটির সভাপতি আসমাউল আসিফের সভপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের অধ্যক্ষ ও রক্তের বন্ধনের প্রধান পৃষ্ঠপোষক অধ্যাপক ড. মুজাহিদ বিল্লাহ ফারুকী। এছাড়াও সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ও সরকারি আশেক মাহমুদ কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক হরুন-অর-রশিদ, উপ-সিভিল সার্জন চিকিৎসক কে এম শফিকুজ্জান, জামালপুর জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এম এ জলিল, কবি ও সাংবাদিক সাযযাদ আনসারী, উপদেষ্টা ও মানবাধিকারকর্মী জাহাঙ্গীর সেলিম, জামালপুর জেলা প্রাইভেট ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনোস্টিক সেন্টার মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. আশরাফুল ইসলাম বুলবুল, রক্তের বন্ধনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক ও সংস্কৃতিকর্মী তানভীর আহমেদ হীরা।

রক্তের বন্ধনের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা অনুষ্ঠানে অতিথিবৃন্দ। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম
রক্তের বন্ধনের ৯ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রা বের হয়। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

আলোচনা সভা শেষে রক্তদাতাদের মাঝে সম্মাননা ও সনদ বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ। সংগঠনের জন্য বিশেষ অবদান রাখায় দুইজনকে সম্মাননা স্মারক, তিনজনকে সেরা রক্তদাতার পদক, জরুরী মুমূর্ষু সময়ে রক্তদান করায় একজনকে ডোনার অফ দ্যা ইয়ার পদক ও একজনকে শ্রেষ্ঠ সংগঠকের পদক প্রদান করা হয়। এছাড়াও অতিথিবৃন্দ ও রক্তদাতাদের মাঝে সম্মাননা সনদ প্রদান করা হয়। সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দুইজন সেচ্ছায় রক্তদান করেন। পরে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের শতাধিক রোগীর মাঝে সংগঠনের পক্ষ হতে শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়।

sarkar furniture Ad
Green House Ad