ন্যায্যমূল্যে ভূমি অধিগ্রহণের দাবিতে নান্দিনায় মানববন্ধন

নান্দিনায় ন্যায্যমূল্যে ভূমি অধিগ্রহণের দাবিতে নান্দিনায় মানববন্ধন। ছবি : মাহমুদুল হাসান মুক্তা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

সড়ক ও জনপথ বিভাগের আওতাধীন জামালপুর-ময়মনসিংহ সড়কের জামালপুর-চেচুয়া রাস্তা প্রশস্ত ও মজবুতীকরণ প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণকৃত ভূমির ন্যায্যমূল্যে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে জামালপুর সদরের নান্দিনা এলাকার ভূমি মালিক ও ব্যবসায়ীরা। ২২ জানুয়ারি সকালে সদরের রানাগাছা ইউনিয়নের নান্দিনা বাজার এলাকায় এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো. আক্তারুজ্জামান বেলাল, রানাগাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ব্যবসায়ী আব্দুল আউয়াল, আওয়ামী লীগনেতা ব্যবসায়ী মো. নজরুল ইসলাম ও ব্যবসায়ী আতিকুর রহমান হামিদী প্রমুখ। স্থানীয় খড়খড়িয়া, নান্দিনা, বাদেচাঁন্দি ও অনন্তবাড়ি মৌজা এলাকার রাস্তার পাশের শত শত ভূমির মালিক, ব্যবসায়ী ও দোকান কর্মচারীরা প্রায় দেড় কিলোমিটার দীর্ঘ সারিতে দাঁড়িয়ে বেলা ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত মানববন্ধনে অংশ নেন।

নান্দিনায় ন্যায্যমূল্যে ভূমি অধিগ্রহণের দাবিতে নান্দিনায় মানববন্ধন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘আমরা সরকারের রাস্তা উন্নয়ন কাজে কোনো বাধা দিচ্ছি না। অধিগ্রহণের ক্ষতিপূরণের টাকা ভূমির বর্তমান বাজার মূল্যে না দিলে ভূমি মালিকরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। রাস্তা প্রশস্ত করার জন্য খড়খড়িয়া, নান্দিনা, বাদেচাঁন্দি ও অনন্তবাড়ি মৌজায় শতাধিক ভূমি মালিকদের ইতিমধ্যে নোটিশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। কিন্তু ১০ মিটার করে ভূমি অধিগ্রহণের নোটিশ দিলেও এখনও ভূমির মূল্যনির্ধারণ করা হয়নি। ভাড়াটে ব্যবসায়ীদের ক্ষতিপূরণের বিষয়েও প্রশাসন থেকে কোনো কিছু বলা হচ্ছে না। এ নিয়ে ভূমির মালিক ও ব্যবসায়ীরা নানা শঙ্কা ও দুঃশ্চিন্তায় রয়েছেন। বর্তমানে এ এলাকায় প্রতি শতক ভূমির মূল্য স্থানভেদে ৩০ লাখ টাকা থেকে ৬০ লাখ টাকায় বেচাকেনা হয়ে থাকে।’ ভূমি মালিকদের সাথে আলোচনা করে বর্তমান বাজারমূল্যের সাথে মিল রেখে অধিগ্রহণকৃত ভূমির ক্ষতিপূরণ দেওয়ার জন্য সরকারের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন ভূমি মালিক ও ব্যবসায়ীরা।

এদিকে ভূমি অধিগ্রহণ প্রসঙ্গে জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বাংলারচিঠিডটকমকে বলেন, সড়ক ও জনপথ বিভাগ জামালপুর-চেচুয়া রাস্তা প্রশস্ত ও মজবুতীকরণ প্রকল্পের কাজ হাতে নিয়েছে। সেই প্রকল্প বাস্তবায়নে রাস্তাটির দক্ষিণপাশ ঘেঁষে ১০ মিটার করে ভূমি অধিগ্রহণ ও ভূমি মালিকদের ক্ষতিপূরণ নির্ধারণের কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ২০১৭ সালের স্থাবর সম্পত্তি অধিগ্রহণ ও হুকুম দখল আইন অনুযায়ীই ক্ষতিপূরণ পাবেন ভূমি মালিকরা।

sarkar furniture Ad
Green House Ad