ভাটারা বাজারে প্রকাশ্যদিবালোকে সবজি বিক্রেতাকে হত্যা

ভাটারা বাজারে নিহত সবজিবিক্রেতার মরদেহ। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় খাজনার টাকা কম দেওয়ায় নুরুল ইসলাম (৬৫) নামের একজন সবজি বিক্রেতাকে কিল ঘুষি ও পিটিয়ে হত্যা করেছে ভাটারা বাজারের ইজারাদার বেলাল ও তার ভাই। ১০ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সরিষাবাড়ী উপজেলার ভাটারা ইউনিয়নের ভাটারা বাজারে প্রকাশ্য দিবালোকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত সবজি বিক্রেতা জামালপুর সদর উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামের মৃত আব্দুল জব্বারের ছেলে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জামালপুর সদর উপজেলার মেষ্টা ইউনিয়নের মল্লিকপুর গ্রামের নুরুল ইসলাম ১০ জানুয়ারি সকালে চার মণ আলু বিক্রি করতে সরিষাবাড়ী উপজেলার ভাটারা বাজারে যান। এ সময় ভাটারা ইউনিয়নের ধোপাদহ গ্রামের আব্দুল কাদের জিলানীর দুই ছেলে বাজারের ইজারাদার বেলাল ও লাভলু তার কাছে খাজনা চায়। নুরুল ইসলাম ১০ টাকা খাজনা দিতে চাইলে টাকা কম হয়েছে বলে ইজারাদার বেলাল তাকে ধমকাতে থাকেন। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে ইজারাদার দুই ভাই মিলে তাকে কিল ঘুষি ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মাটিতে ফেলে দেন। এ সময় নুরুল ইসলাম উঠে দাঁড়ালে তাকে আবারো গলা ধরে পাশের দেয়ালে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। এ ঘটনার পর থেকে হাটের ইজারাদার বেলাল ও তার ভাই লাভলু গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে।

একজন সবজিবিক্রেতাকে প্রকাশ্য দিবালোকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনা জানাজানি হলে ভাটারা বাজারের ব্যবসায়ী বিক্ষোভ প্রদর্শন এ ঘনটার তীব্র প্রতিবাদ ও হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। খবর পেয়ে সরিষাবাড়ী থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে নিহত নুরুল ইসলামের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় গিয়ে গেছে।

এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাজেদুর রহমান বাংলারচিঠিডটকমকে বলেন, নিহত নুরুল ইসলামে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। ১১ জানুয়ারি ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ জামালপুর মর্গে পাঠানো হবে। এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের পরিবারের সদস্যরা এখনও থানায় মামলা দায়ের করেনি। মামলা দায়ের হলে আসামিদের গ্রেপ্তারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

sarkar furniture Ad
Green House Ad