সাংবাদিক শেলুকে নির্যাতনের প্রতিবাদে এপেক্স ক্লাবের মানববন্ধন

সাংবাদিক এপেক্সিয়ান শেলু আকন্দকে নির্যাতনের প্রতিবাদে জামালপুর এপেক্স ক্লাবের মানববন্ধন। ছবি : বাংলারচিঠিডটকম

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
বাংলারচিঠিডটকম

জামালপুরের সাংবাদিক এপেক্সিয়ান শেলু আকন্দকে নির্যাতন মামলার সকল আসামিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে জামালপুর এপেক্স ক্লাব। ৭ জানুয়ারি বেলা ১১টায় শহরের দয়াময়ী মোড়ে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

জামালপুর এপেক্স ক্লাবের সভাপতি আবু সায়েম সাদাতুল করিম সায়েমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও চ্যানেল আইয়ের সাংবাদিক এপেক্সিয়ান হাফিজ রায়হান সাদা ও সাধারণ সম্পাদক এটিএন বাংলার সাংবাদিক লুৎফর রহমান, জামালপুর জেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এপেক্সিয়ান এম এ জলিল ও সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক দিনকালের সাংবাদিক মুকুল রানা,, এপেক্সিয়ান প্রণব বসাক সুবল, এপেক্সিয়ান সৈয়দ আব্দুস শাফী, হাজি ইউসুফ খান, কাফি পারভেজ, এপেক্সিয়ান মনজুরুল ইসলাম, এপেক্সিয়ান এনামুল হক তালুকদার রিপন, ভোরের কাগজের সাংবাদিক দুলাল হোসাইন, দৈনিক সমকালের সাংবাদিক আনোয়ার হোসেন মিন্টু, দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোস্তফা মনজু, সময়টিভির সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলম, বাংলারচিঠিডটকমের সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম, এসএ টিভির সাংবাদিক ফজলে এলাহী মাকাম, দৈনিক বর্তমানের সাংবাদিক আজিজুর রহমান চৌধুরী, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি জেলা শাখার যুগ্ম-সম্পাদক মারুক আহাম্মেদ মানিক।

বক্তারা সাংবাদিক নির্যাতনকারী পৌরসভার কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনুকে পৌর কাউন্সিলর পদ থেকে অপসারণ ও তার শহর আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে বহিষ্কার এবং তার ছেলে রাকিবুল ইসলাম খান রাকিবকে জেলা ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কারসহ সাংবাদিক নির্যাতন মামলার সকল আসামিদের গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, সাংবাদিক শেলু আকন্দকে নির্যাতন মামলার আসামিদের মধ্যে কয়েকজন আসামি প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করলেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করছে না। দাবি না মানা হলে পরবর্তীতে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে বলে বক্তারা ঘোষণা দেন।

প্রসঙ্গত, জামালপুরের স্থানীয় দৈনিক পল্লীকণ্ঠ প্রতিদিনের সাংবাদিক ও জামালপুর প্রেসক্লাবের সদস্য এপেক্সিয়ান শেলু আকন্দ গত ১৮ ডিসেম্বর রাত ১১টার দিকে সদর উপজেলা ভূমি অফিসের পেছনে ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে বাইপাস সড়কে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হন। সন্ত্রাসীরা পিটিয়ে তার দুটি পা ভেঙে দিয়েছে। তিনি বর্তমানে ঢাকায় জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় শেলু আকন্দের ভাই মো. দেলোয়ার হোসেন বাদী হয়ে সদর থানায় দায়ের করা মামলার প্রধান আসামি তুষার খান ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম খান রাকিবকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। মামলার অন্যতম আসামি পৌর কাউন্সিলর হাসানুজ্জামান খান রুনু, তুহিন খান, সজন খান ও সিদ্দিক মন্ডলসহ অন্যান্য আসামিদের পুলিশ এখনও গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

sarkar furniture Ad
Green House Ad