কবিতা দেশপ্রেম ও মানবিক মূল্যবোধকে জাগ্রত করে : তথ্যমন্ত্রী

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক : কবিতা মানসিক ক্ষতের উপশম ঘটায় উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, কবিতা দেশপ্রেম ও মানবিক মূল্যবোধকে জাগ্রত করার ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং একটি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গড়ে তুলতে প্রেরণা যোগায়।

৩১ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক লেখক দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘মানুষ আত্মকেন্দ্রিক হয়ে উঠছে। কবিতা মানুষকে মানবিক করে তোলে।’ বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাব (বিডব্লিউসি)-এর উদ্যোগে সংগঠনের সভাপতি বিশিষ্ট কবি নূরুল হুদার সভাপতিত্বে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

হাছান বলেন, বিশ্বব্যাপী এখন অস্থিতিশীল পরিস্থিতি বিরাজ করছে। মানুষ আত্মকেন্দ্রিক ও যন্ত্রের উপর নির্ভরশীল হয়ে উঠছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘সমাজকে রক্ষা করতে সকলের মধ্যে মানবিক মূল্যবোধ ও দেশপ্রেম জাগ্রত করতে হবে এবং একজন কবিই সমাজে শান্তি বজায় রাখার ক্ষেত্রে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। একজন কবিই পারেন মানবতা রক্ষা করতে।’ তিনি বলেন, কবিতা একটা শক্তিশালী মাধ্যম এবং এর কল্যাণ সাধনের করার একটা ক্ষমতা রয়েছে।

আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক হাছান বলেন, ‘একজন কবি রাষ্ট্র বিনির্মাণে, সামাজিক ও জাতীয় পর্যায়ে জ্ঞান ও প্রজ্ঞা বিকাশের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।’

তিনি বলেন, বিগত কয়েক বছরে গণমাধ্যম প্রবাহের পরিবর্তন হয়েছে। মানুষ এখন খুব সহজেই মাত্র কয়েক মিনিটের মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোটি মানুষের কাছে তাদের বার্তা পৌঁছে দিতে পারেন।

ড. হাছান বলেন, দেশের উন্নয়নের পাশাপাশি আমাদেকে একটা উন্নত জাতি গড়ে তুলতে হবে। আত্মকেন্দ্রিকতা থেকে আমাদের দূরে থাকা প্রয়োজন।

দেশের নিজস্ব সংস্কৃতির অনুশীলন বাড়াতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, আমাদের মানবিক, সামাজিক ও পারিবারিক মূল্যবোধ রক্ষায় কবিতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।’

ড. হাছান বলেন, বর্তমান সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃতে একটি ক্ষুধা ও দারিদ্র মুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে তিনি বলেন, বাংলাদেশকে একটি সমৃদ্ধ দেশ হিসাবে গড়ে তোলার স্বপ্ন ছিল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের। মন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে তার সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃতে বাংলাদেশ এখন দ্রুত উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যে মধ্যে কবি কাজী রোজী, বিডাব্লিউসির সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমেদ দুলাল, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুন সরকার রানা, ভারত থেকে আগত কবি শম্পা দাস, নাহিদা আশরাফী, নাসরিন ইসলাম, সোহাগ সিদ্দিকী ও ঝর্ণা রহমান উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ঢাকা ঘোষনা পাঠ করেন কবি শাহ মোহাম্মদ সানাউল হক।

মন্ত্রী পরে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।সূত্র:বাসস।

sarkar furniture Ad
Green House Ad