মিয়ানমারের বিরুদ্ধে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় জাতিসংঘে প্রস্তাব পাস

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক : জাতিসংঘ বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলমান ও অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানবাধিকার পরিস্থিতির ওপর একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছে।

২৭ ডিসেম্বর নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনের ৫২তম মুলতবি সভায় এ প্রস্তাব পাস হয় বলে ২৮ ডিসেম্বর ঢাকায় প্রাপ্ত জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী মিশনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এতে বলা হয়, প্রস্তাবের পক্ষে ১৩৪ দেশ, বিপক্ষে ৯ এবং ভোটদানে বিরত ছিল ২৮ দেশ।

ওআইসি ও ইইউ যৌথভাবে এই প্রস্তাব পেশ করে। এর আগে ১৪ নভেম্বর থার্ড কমিটিতেও বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতায় প্রস্তাবটি পাস হয়।
২৯১৭ সাল থেকে এ নিয়ে সাধারণ পরিষদে ৩ বার প্রস্তাব গৃহীত হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পূর্ববর্তী বছরগুলোর মতো বাংলাদেশের স্থায়ী মিশন খসড়া প্রস্তাব, পারস্পরিক সমঝোতা ও চূড়ান্ত প্রস্তাব গ্রহণ প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্ত ছিল।

একই অধিবেশনে গত বছর হিউম্যান রাইটস কাউন্সিলের মিয়ানমারের ব্যাপারে গঠিত স্বাধীন তদন্ত প্রক্রিয়ার (আইআইএমএম) জন্য নিয়মিত বাজেট বরাদ্দ বিষয় সর্বসম্মতভাবে অনুমোদিত হয়।

আইআইএমএম হচ্ছে মিয়ানমার সম্পর্কিত ইন্টারন্যাশনাল ফ্যাক্ট-ফাইন্ডিং মিশনের উত্তরসূরী।

স্থায়ী মিশনের মতে সাধারণ পরিষদের এই প্রস্তাব আইসিজে ও আইসিসি-সহ চলমান বিচার ও জবাবদিহিতার উদ্যোগকে আরো জোরদার করবে।

বাংলাদেশ ১১ লাখ বাস্তুচ্যূত রোহিঙ্গাকে কক্সবাজারে অস্থায়ী ক্যাম্পে আশ্রয় দিয়েছে। তাদের অধিকাংশ ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট থেকে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর অভিযান শুরুর পর বাংলাদেশে এসেছে।

স্বদেশে আস্থা ও নিরাপত্তার অভাবে গত ২ বছরে কোন রোহিঙ্গা নিজ বাসভূমে ফিরে যায়নি।সূত্র:বাসস।

sarkar furniture Ad
Green House Ad