৫ মে ময়মনসিংহের প্রথম সিটি নির্বাচন, শতভাগ ইভিএম এর প্রস্তুতি

বাংলারচিঠিডটকম ডেস্ক : রাত পোহালেই ময়মনসিংহের প্রথম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের ভোট। ৫ মে সকাল আটটা থেকে শুরু হয়ে কোনো বিরতি ছাড়াই বিকেল চারটা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হবে। এরপর ফল ঘোষণা।

এই নির্বাচনকে অবাধ, সুষ্ঠ ও শান্তিপুর্ণ করতে ও দেশের প্রথম শতভাগ ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন।

বৈরী আবহাওয়ার মধ্যদিয়ে ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচন সুষ্ঠ ও সফল ভাবে সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে নির্বাচন কমিশন। সকাল থেকে বৃষ্টির মধ্যে কেন্দ্রে কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠানো হয়েছে।

৫ মে দেশের ১২তম ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। নির্বাচনে ৩৩ ওয়ার্ডের ১২৭টি ভোট কেন্দ্রেই ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ হবে।

এদিকে, দেশের ইতিহাসে প্রথমবারের মত সম্পূর্ন ইভিএম পদ্ধতি ব্যবহার করে ভোট গ্রহণের ক্ষেত্রে কারিগরি সকল ধরনের ক্রটি বা সমস্যা নিরসনে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষিত দুজন করে অভিজ্ঞ এক্সপার্ট বা বিশেষজ্ঞ থাকবে। এছাড়া প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের ইভিএম মেশিনের পিছনে প্রশিক্ষিত কর্মকর্তা ও সিভিল এক্সপার্ট রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

এছাড়াও ইভিএম পদ্ধতির ধারণা দিতে ভোটারদেরকে মগ ভোটিং বা খেলনা ভোটিং বা নুমনা ভোটের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। ৩ মে সিটির ১০১ টি কেন্দ্রে সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত এবং বিসিএস পরীক্ষার কারণে ২৬টি ভোট কেন্দ্রে দুপুর বারোটা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খেলনা ভোট গ্রহণ করা হয়।

প্রথমবারের মত অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনে সব ধরনের নিরাপত্তা বিধানে নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। নির্বাচনে ভোট গ্রহণ সংশ্লিষ্ঠ কর্মকর্তা, প্রার্থী ও ভোটারসহ সকলের নিরাপত্তায় ২২ প্লাটুন বিজিবি, ৩৩ টিম র‌্যাব (প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে টিম), আনসার ব্যাটালিয়ন তিনটি টিম, পুলিশের (প্রতি ওয়ার্ডে একটি করে) ৩৩টি মোবাইল টিম ও ১১টি স্টাইকিং দল থাকবে।

এছাড়া প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে সার্বক্ষনিক ১০জন আনসার ও তিনজন করে পুলিশ থাকবে। এর মধ্যে পাঁচজন অস্ত্রধারী থাকবে। এছাড়াও প্রতিটি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী হাকিমসহ তিনজন অতিরিক্ত নির্বাহী হাকিম দায়িত্ব পালন করবেন।

৪ মে দুপুরে ময়মনসিংহ সিটি নির্বাচনের আইন শৃঙ্খলার প্রস্তুতি বিষয়ে র‌্যাব-১৪ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল মো. এফতেখার উদ্দিন সাংবাদিকদের জানান, প্রত্যেকটি ওর্য়াডে কর্মকর্তার সমন্বয়ে পর্যাপ্ত র‌্যাব সদস্য মোতায়েন থাকবে। এছাড়াও সাদা পোশাকেও টহল দল ৫ শতাধিক র‌্যাব সদস্য নির্বাচনের মাঠে দায়িত্ব পালন করবে।

এই নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য করতে সকল ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. আলীমুজ্জামান।

তিনি আরো জানান, নির্বাচনকালীন সকল ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রণ এবং অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে সাজা প্রদানে ১৬ জন বিচারিক হাকিম মাঠে থাকবে।

উল্লেখ যে, ৫ মে ময়মনসিংহ সিটি করর্পোরেশনের নির্বাচনে ইতিপূর্বে মেয়র পদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় আওয়ামী লীগের ইকরামুল হক টিটু নির্বাচিত হওয়ায় এখন শুধু কাউন্সিলর পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১২৭টি ভোট কেন্দ্রে ২ লাখ ৯৬ হাজার ৯৩৮ জন ভোটার তাদের ভোট প্রয়োগ করে ৩৩টি ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও ১১টি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী নির্বাচিত করবেন।

sarkar furniture Ad
Green House Ad