সঙ্গীত শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহর দাফন সম্পন্ন

বাংলারচিঠি ডটকম ডেস্ক : প্রখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। রাজধানীর বনানীতে সামরিক বাহিনীর কবরস্থানে ২৪ মার্চ তাঁর মরদেহ দাফন করা হয়। এর আগে বাদজোহর বারিধারার ৯ নম্বর রোডের পার্ক মসজিদে শাহনাজ রহমতুল্লাহর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। খবর বাসসের।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দাফনের সময় তাঁর স্বামী মেজর (অব.) আবুল বাশার রহমতউল্লাহ ছাড়াও শিল্পীর আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

বরেণ্য সঙ্গীত শিল্পী শাহনাজ রহমতুল্লাহ ২৩ মার্চ সাড়ে ১১টায় বারিধারায় নিজ বাসভবনে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান ( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন) ।

তার বয়স হয়েছিল ৬৭ বছর। শাহনাজ রহমতুল্লাহ ১৯৫২ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি স্বামী, এক পুত্র, এক মেয়েসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। মেয়ে নাহিদ রহমত উল্লাহ লন্ডনে এবং ছেলে এ কে এম সায়েফ রহমতউল্লাহ কানাডায় থাকেন।

আধুনিক গান, গজল, দেশাত্মবোধক গান ও চলচ্চিত্রের অসংখ্য চিরায়তধারার গান গেয়েছেন শিল্পী শাহনাজ রহমতউল্লাহ। ছোটবেলা থেকে সঙ্গীত চর্চা শুরু করেন। মাত্র ১১ বছর বয়সে ১৯৬৩ সালে ‘নতুন সুর’ ছবিতে গান করেন। সে থেকে বাংলা, উর্দু কয়েকটি ছবিতে গান করেন। ১৯৭৩ সালে ‘ আবার তোরা মানুষ হ ‘ চলচিত্রেও গান গেয়েছেন।

তার গাওয়া অসংখ্য গান বাংলা সঙ্গীত জগতকে সমৃদ্ধ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে ‘একতারা তুই দেশের কথা বলরে এবার বল, যে ছিল দৃষ্টির সীমনায়, একবার যেতে দে না আমায় ছোট্ট সোনার গায়, এক নদী রক্ত পেরিয়ে, ফুলের কানে ভ্রমর এসে, আমার দেশের মাটিরও গন্ধে।

শাহনাজ সঙ্গীতে বিশেষ অবদানের জন্য একুশে পদক, জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, শিল্পকলা একাডেমি পুরস্কার ও চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতির পুরস্কার লাভ করেন। তার গানের বেশ কয়েকটি এ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে । সূত্র : বাসস

Views 17 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad