গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রক্রিয়া স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছে ক্যাব

বাংলারচিঠি ডটকম ডেস্ক : গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রক্রিয়া স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছে কনজ্যুমার অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশ (ক্যাব)। ১৩ মার্চ সকালে এ রিট আবেদন করা হয়।

গ্যাসের দাম আরেক দফায় বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে বিতরণ কোম্পানিগুলো। তারা চাইছে এ দফায় সব ধরনের গ্যাসের দাম ৬০ শতাংশ বাড়ানো হোক।

গ্রাহক পর্যায়ে ১ বার্নারের গ্যাসের চুলা ৭৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা, ২ বার্নারের চুলা ৮০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১ হাজার ২০০ টাকা এবং মিটারযুক্ত চুলার ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ৯ টাকা ১০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ১৩ টাকা ৬৫ পয়সা করার প্রস্তাব দিয়েছে বিতরণ কোম্পানিগুলো।

এরইমধ্যে গ্যাসের দাম পুনর্নির্ধারণের লক্ষ্যে গণশুনানি শুরু হয়েছে। গ্যাসের দাম বৃদ্ধিতে পেট্রোবাংলা, জিটিসিএল এবং বিতরণকারী কোম্পানিগুলোর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ গণশুনানি আয়োজন করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

কোম্পানিগুলোর এমন প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গণশুনানি শুরু করেছে। গত ১১ মার্চ থেকে শুরু হওয়া এই গণশুনানি চলবে ১৪ মার্চ পর্যন্ত।

বিইআরসি সূত্র জানায়, নতুন প্রস্তাবে বাসা-বাড়িতে দুই বার্নার চুলার গ্যাসের দাম ৮৫০ থেকে বাড়িয়ে এক হাজার ২০০ টাকা এবং এক বার্নারের দাম ৭৫০ থেকে বৃদ্ধি করে এক হাজার টাকার কথা বলা হয়েছে। আবেদন গৃহীত হলে আবাসিক ছাড়াও দাম বাড়বে বিদ্যুকেন্দ্র, ক্যাপটিভ পাওয়ার, সিএনজি, শিল্প ও সার কারখানায় ব্যবহৃত গ্যাসের।

সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে গ্যাসের দাম গড়ে ২২ দশমিক ৭০ শতাংশ বাড়ানো হয়। সে বছরের মার্চ ও জুলাই থেকে দুই ধাপে তা কার্যকর করার কথা ছিল। আদালতের রায়ের কারণে প্রথম ধাপের দামবৃদ্ধি কার্যকর হলেও দ্বিতীয় ধাপ কার্যকর হয়নি।
সূত্র : ডেইলি বাংলাদেশ

Views 24 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad