সাংবাদিকরা সরকার ও জনগণের মধ্যে সেতুবন্ধ রচনা করেন : শিক্ষামন্ত্রী

বাংলারচিঠি ডটকম ডেস্ক : শিক্ষামন্ত্রী চিকিৎসক দীপু মনি বলেছেন, সাংবাদিকরা সরকার ও জনগণের মধ্যে সেতুবন্ধ রচনা করেন। তথ্য জনগণের কাছে পৌঁছে দেন। তাই সেই তথ্যটি বস্তুনিষ্ঠ হতে হবে। সরকার ভুল করলে তা অবশ্যই তুলে ধরবেন।

১০ ফেব্রুয়ারি জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থাপনা একাডেমি (নায়েম) মিলনায়তনে বাংলাদেশ এডুকেশন রিপোর্টার্স ফোরামে’র (বিইআরএফ) অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন, করিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক, নায়েমের মহাপরিচালক আহাম্মেদ সাজ্জাদ রশিদ, এনসিটিবি’র চেয়ারম্যান প্রফেসর নারায়ন চন্দ্র সাহা, ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক, বিইআরএফ-এর সভাপতি মোস্তফা মল্লিক ও সাধারণ সম্পাদক এস এম আব্বাস বক্তৃতা করেন।

শিক্ষামন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা সরকারের এবারের ইশতেহারে একটি বড় অঙ্গীকার মানসম্মত শিক্ষা। বিগত ১০ বছরে শিক্ষায় অনেক অর্জন রয়েছে। কিছু চ্যালেঞ্জও আছে। মান অর্জনের বিষয়টিও আমাদের বিবেচনায় রয়েছে। এক্ষেত্রে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

পরে শিক্ষামন্ত্রী ঢাকায় বাংলাদেশ শিক্ষাতথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস) সম্মেলন কক্ষে ’বাংলাদেশ এডুকেশন স্ট্যাটিস্টিকস্ ২০১৮’ চুড়ান্তকরণের লক্ষ্যে আয়োজিত এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন। অনুষ্ঠানে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

এখানে বক্তৃতাকালে চিকিৎসক দীপু মনি বলেন, শিক্ষাক্ষেত্রে অনেক উন্নতি ও অগ্রগতি হয়েছে। আমাদের শিক্ষার্থীরা ক্রমান্বয়ে ভাল করছে। শিক্ষা বিষয়ক তথ্য সঠিকভাবে সন্নিবেশ, তথ্যের বিশ্লেষণ এবং সঠিক কাজে লাগানোর মাধ্যমে শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন সম্ভব। নীতিনির্ধারণী পর্যায়ে তথ্যকে কাজে লাগানো সম্ভব হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, শিক্ষার মূল উদ্দেশ্য শুধু পাঠ্যপুস্তকের জ্ঞান অর্জন নয়, নৈতিকতা, আদর্শসহ পরিপূর্ণ মানুষ হওয়া। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থা, জীবন-যাপন পদ্ধতি নিয়ে হীনমন্যতার কোন কারণ নেই। আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থারও সুদীর্ঘ ঐতিহ্য রয়েছে।

তিনি বলেন, মানসম্মত শিক্ষার জন্য মানসম্মত শিক্ষক প্রয়োজন। শিক্ষার উন্নয়নে সঠিকভাবে নিজ নিজ দায়িত্ব পালনের জন্য তিনি সকলের প্রতি আহবান জানান।

ব্যানবেইস-এর মহাপরিচালক মো. ফসিউল্লাহ্র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. সোহরাব হোসাইন এবং করিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর। ’বাংলাদেশ এডুকেশন স্ট্যাটিস্টিকস্ ২০১৮’ বিষয়ে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপনা করেন ব্যানবেইসের বিশেষজ্ঞ শেখ মো. আলমগীর।
সূত্র : বাসস

Views 22 ফেসবুকে শেয়ার করুন!
sarkar furniture Ad
Green House Ad