জামালপুরে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত

আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবসের মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

‘টেকসই উন্নয়ন, গণতন্ত্র, শান্তি ও সুশাসন: দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসাথে’ এই আওয়াজ তুলে ৯ ডিসেম্বর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত হয়। টিআইবি, সচেতন নাগরিক কমিটি-সনাক, দুদক, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি-দুপ্রক জামালপুর এর যৌথ সহযোগিতায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবসে শহরের বকুলতলা মোড়ে ৯ ডিসেম্বর সকাল ১০টায় মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর।

জামালপুর সনাকের সভাপতি অধ্যাপক মীর আনছার আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন দুপ্রকের সভাপতি অধ্যাপক মাসুম আলম খান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজীব কুমার সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ বছির উদ্দিন, দুদক এর উপসহকারী পরিচালক নূর আলম সিদ্দিক, জামালপুর সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস  এম. মাজহারুল ইসলাম, বিশিষ্ট নারী নেত্রী আইনজীবী শামীম আরা, সনাক সহসভাপতি শফিক জামান লেবু, দুপ্রকের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম, কবি সাযযাদ আনসারী প্রমুখ। মানববন্ধনে ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন ইয়েস ফ্রেন্ডস দলনেতা আফরিন খান এবং সঞ্চালনা করেন সনাক সদস্য এ কে এম  আশরাফুজ্জামান স্বাধীন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জামালপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর বলেন, দুর্নীতি উন্নয়নের প্রধান অন্তরায়। তাই টেকসই উন্নয়নের জন্য দুর্নীতির বিরুদ্ধে সকলকে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের অনেক সূচকে বিশ্বের বিস্ময় হিসেবে আর্বিভূত হয়েছে। তিনি বিজয়ের মাসে স্বাধীনতার স্বপ্নপূরণে সকলকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান। দিবসটি আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতার জন্য টিআইবি, দুদুক, সনাক, দুপ্রকসহ সকলকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মুহাম্মদ বছির উদ্দিন দুর্নীতি দূর করতে ধর্মীয় অনুশাসন মেনে চলার উপর বিশেষভাবে গুরুত্বারোপ করেন। তিনি সকলকে ব্যক্তিগতভাবে সততার সাথে জীবন পরিচালনা করার আহ্বান জানান।

অতিরিক্তি জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজীব কুমার সরকার বলেন, দুর্নীতি স্বাধীনতার চেতনার পরিপন্থী-পাকিস্তানী দুঃশাসনে যে বৈষম্যের পাহাড় গড়ে উঠে ছিল। মহান মুক্তিযুদ্ধ ছিল সেই দু:শাসনের বিরুদ্ধে বাঙালির প্রথম বিজয়। দুর্নীতি দূর করে টেকসই উন্নয়ন ও বাঙালির সেই বিজয়কে সুসংহত করতে হবে। তিনি সকলকে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানান। বক্তারা একইসাথে বেগম রোকেয়া দিবসের উপরও আলোকপাত করেন।

মানববন্ধনে লিখিত বক্তব্যে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রেক্ষিতে রাজনৈতিক দলগুলো কর্তৃক গণতন্ত্র ও সুশাসনের বিদ্যমান ঘাটতি পূরণে সুনির্দিষ্ট অঙ্গীকার থাকা এবং অঙ্গীকারসমূহ কিভাবে বাস্তবায়িত হবে তার সুনির্দিষ্ট রূপরেখা থাকা, প্রতিটি রাজনৈতিক দলকে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশলপত্র অনুসরণপূর্বক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়ন ও প্রতি বছর অগ্রগতি পর্যালোচনা করা, নির্বাচনে কালো টাকার প্রভাব কমাতে প্রার্থীদের ব্যয়ের হিসেব পর্যবেক্ষণ করাসহ দুর্নীতি প্রতিরোধে দুদককে শক্তিশালী করতে রাজনৈতিক সদিচ্ছার কার্যকর প্রয়োগ নিশ্চিত করার আহ্বান জানানো হয়।

অন্যদিকে দুদক এর নেতৃত্ব পর্যায়ে অকুতোভয় সৎসাহস, দৃঢ়তা ও নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করাসহ দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার আন্দোলন গড়ে তোলার দাবিতে সর্বস্তরের মানুষকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয়। জেলা প্রশাসন, জামালপুর, পুলিশ প্রশাসন, জামালপুর, উপজেলা প্রশাসন, জামালপুর সদর, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ, জেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি, সনাক-টিআইবি এর সদস্যবৃন্দ, স্বজন ও ইয়েস-ইয়েস ফ্রেন্ডস গ্রুপের সদস্যবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সুজন, ক্যাব, ব্র্যাক, উন্নয়ন সংঘ, অপরাজেয় বাংলাদেশ, এফপিএবি, তরঙ্গ মহিলা কল্যাণ সংস্থা, গণমাধ্যমকর্মী, সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন এবং দুর্নীতির বিরুদ্ধে দৃঢ় ব্যক্ত করেন।

সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad