জামালপুরে প্রতিবন্ধী দিবস পালিত

প্রতিবন্ধী দিবসের শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজিব কুমার সরকার। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

নিজস্ব প্রতিবেদক, জামালপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

সারাদেশের মতো জামালপুরেও ৩ ডিসেম্বর পালিত হয়েছে ২৭তম আন্তর্জাতিক ও ২০তম জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস। এ উপলক্ষে সকাল ১০টায় জামালপুর বকুলতলা চত্বর হতে বের হয় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। শহর প্রদক্ষিণের পর জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজিব কুমার সরকার। দিবসটির প্রতিপাদ্য ছিলো ‘সাম্য ও অভিন্ন যাত্রায় প্রতিবন্ধী মানুষের ক্ষমতায়ন’।

জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক গোলাম মোস্তফার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. বাশির উদ্দিন, জেলা প্রতিবন্ধী বিষয়ক কর্মকর্তা মো. নুরুল ইসলাম, প্রবীণ সাংবাদিক এ এ কে মাহমুদুল হাসান, সমাজকর্মী খন্দকার হাফিজুর রহমান বাদশা, উন্নয়ন সংঘের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক ও জেলা প্রতিবন্ধী অধিকার ও সুরক্ষা কমিটির সদস্য জাহাঙ্গীর সেলিম, সমাজসেবা কর্মকর্তা ইকবাল হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শাহ্ আলম ও সহকারী অধ্যাপক তারিকুল ফেরদৌস।

আলোচনা সভা শেষে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আগত দর্শকস্রোতাদের মুগ্ধ করে। পরে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মাঝে হুইল চেয়ারসহ অন্যান্য সহায়ক উপকরণ বিতরণ করা হয়।

প্রতিবন্ধী দিবসে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন চিকিৎসক গৌতম রায়। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠীকে উন্নয়নের মূলস্রোতধারায় সম্পৃক্ত করতে নানামুখী কার্যক্রম হাতে নিয়েছে। বিশেষ করে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির অধিকার ও সুরক্ষা আইন প্রণয়ন, প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশন গঠন, প্রতিবন্ধী জরিপ, পরিচয়পত্র প্রদান, সরকারি চাকরিতে কোটা প্রদান, প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের ভাতা প্রদান, শিক্ষা উপবৃত্তি প্রদান, প্রশিক্ষণ ও ঋণ এবং অনুদান প্রদান, জাতীয় প্রতিবন্ধী ক্রীড়া কমপ্লেক্স নির্মাণ ইত্যাদি।

জামালপুরে ইতিমধ্যে প্রতিবন্ধীদের জন্য বহুতল ভবন নির্মাণের কাজ প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। জেলায় মোট প্রতিবন্ধীর সংখ্যা ২৬ হাজার ৮৮৭ জন। এরমধ্যে ভাতাভুগী প্রতিবন্ধীর সংখ্যা ১৭ হাজার ৬০৩ জন। এ ছাড়া জামালপুরে প্রতিবন্ধী চিকিৎসা ও সেবাকেন্দ্রের মাধ্যমে ব্যাপক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করা হচ্ছে বলে সমাজসেবা সূত্র জানায়।

অপরদিকে দিবসটির তাৎপর্য ও গুরুত্ব তুলে ধরে এইদিন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের উদ্যোগে শোভাযাত্রা, প্রচার কার্যক্রম ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। শোভাযাত্রা শেষে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. নজরুল ইসলাম সভাকক্ষে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিভিল সার্জন চিকিৎসক গৌতম রায়। এতে আরো বক্তব্য রাখেন সহকারী সিভিল সার্জন চিকিৎসক মোন্তাকিম মাহমুদ সাদী, জামালপুর জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা চিকিৎসক এ কে এম শফিকুজ্জামান, জেলা স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আনিছুর রহমান প্রমুখ।

সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad