ইয়েমেনে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে ৫২ লাখ শিশু

বাংলার চিঠি ডটকম ডেস্ক॥
ইয়েমেনে ৫০ লাখের বেশি শিশু দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে রয়েছে। দেশটিতে চলমান যুদ্ধের কারণে খাবার ও জ্বালানীর দাম বেড়ে যাওয়ায় সেখানে এমন অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। দাতব্য সংস্থা সেভ দ্য চিলড্রেন ১৯ সেপ্টেম্বর একথা জানিয়েছে। খবর এএফপি’র।

সংস্থাটি জানায়, ইয়েমেনে খাবারের দাম ও পরিবহন খরচ বেড়ে যাওয়ায় দেশটিতে অতিরিক্ত ১০ লাখ শিশু এখন দুর্ভিক্ষের ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। এনিয়ে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকিতে থাকা মোট শিশুর সংখ্যা বেড়ে ৫২ লাখে দাঁড়ালো।

আন্তর্জাতিক এ সংস্থা আরো জানায়, বন্দরে যে কোন ধরনের অবরোধ লাখো শিশুর জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিবে। এছাড়া আরো কয়েক লাখ শিশুকে দুর্ভিক্ষের দিকে ঠেলে দিবে।

২০১৪ সাল থেকে দেশটিতে ইরান সমর্থিত শিয়া হুতি বিদ্রোহীদের সাথে প্রেসিডেন্ট আব্দেরাব্বো মানসুর হাদি’র অনুগত সৈন্যদের সংঘর্ষ চলছে।

২০১৫ সালে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেন প্রেসিডেন্টের পক্ষে হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে। সৌদি আরব হুতিদের সমর্থন দেয়ার জন্য ইরানকে অভিযুক্ত করে। এই যুদ্ধে এখন পর্যন্ত প্রায় ১০ হাজার লোক প্রাণ হারিয়েছে।

সেভ দ্যা চিলড্রেন ইন্টারন্যাশনালের সিইও হেলে থোরনিং স্কিমিড বলেন, ‘ইয়েমেনের লাখ লাখ শিশু জানে না তারা আবার কখন খাবে। কখন তাদের খাবার আসবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘উত্তর ইয়েমেনের একটি হাসপাতালে আমি দেখেছি শিশুরা এতোই দুর্বল যে কাঁদতেও পারছে না।’

তিনি বলেন, ‘এই যুদ্ধ ইয়েমেনের গোটা শিশু প্রজন্মকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়েছে।’

জাতিসংঘ সর্তক করে দিয়ে বলেছে, হোদেইদায় যে কোন ধরনের বড় যুদ্ধ হলে ইয়েমেনের ৮০ লাখ লোকের কাছে খাদ্য বিতরণ ব্যাহত হতে পারে। আর এসব খাবারের উপর নির্ভর করেই তারা টিকে আছে।
সূত্র : বাসস

Views 60   ফেসবুকে শেয়ার করুন!
সর্বশেষ
sarkar furniture Ad
Green House Ad