ঝিনাইগাতীতে সরকারি জমি দখলে নিয়ে স্থাপনা তৈরির অভিযোগ

ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাকাকুড়ায় সরকারি জমি (খাস) দখল করে ৬ জানুয়ারি গভীর রাতে সিমেন্টের খুঁটি দিয়ে ও টিনের ছাউনি টিন শেড ঘর. রান্নাঘর এবং শৌচাগার নির্মাণ করা হয়েছে। ছবি : বাংলারচিঠি ডটকম

সুজন সেন, নিজস্ব প্রতিবেদক, শেরপুর
বাংলারচিঠি ডটকম

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলায় সরকারি খাস জমি দখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাকাকুড়া এলাকার মুখলেসুর রহমান নামে এক ব্যক্তি প্রভাব খাটিয়ে সরকারি ১০ শতাংশ জমি দখল করে। এ ছাড়া সেখানে সিমেন্টের খুঁটি ব্যবহার করে টিন শেড ঘর, রান্নাঘর এবং শৌচাগার নির্মাণ করা হয়েছে। ৬ জানুয়ারি গভীররাতে ওইসব কিছু নির্মাণ করা হয়। মুখলেসুর ওই গ্রামের মৃত মুনসুর আলীর ছেলে।

৮ জানুয়ারি সকালে সরেজমিনে গেলে স্থানীয় আব্দুর রহমান, আশরাফ আলী, হাসমত, করিম শেখ ও সোহেল অভিযোগ করে বলেন, বাকাকুঁড়া-গুরুচরণ দুধনই সড়কের সেতুর পাশে ওই ১০ শতাংশ খাস জমি জোর পূর্বক দখল করে প্রায় ৮ হাত চওড়া ও ২০ হাত লম্বা জায়গা জুড়ে সিমেন্টের খুঁটি গেড়ে টিনের ছাউনি দিয়ে একটি ঘর, রান্নাঘর ও শৌচাগার নির্মাণ করা হয়েছে। একই সাথে বালু দিয়ে ভরাট করা হচ্ছে জমিটি।

জায়গাটি এক নম্বর সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত উল্লেখ করে কাংশা ও ধানশাইল ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা সুজন কুমার সোম বলেন, ৬ জানুয়ারি বিকেলে ওই ঘর নির্মাণের সময় বাধা দিয়ে কাজ বন্ধ করে দেওয়া হয়। কিন্তু রাতের আধারে মুখলেসুর রহমান নামে এক ব্যক্তি ওই জমিতে টিন শেড ঘর নির্মাণ করেছেন।

অন্যদিকে জমিটি নাজমা বেগম নামে এক মহিলার কাছ থেকে কিনেছেন বলে দাবি করেন স্থাপনা নির্মাণকারী মুখলেসুর রহমান।

জায়গাটি উদ্ধারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী হাকিম রাশেদুল হাসান।

sarkar furniture Ad
Green House Ad